মঙ্গলবার, ০৫ মে ২০১৫ ।

মে’র শেষ সপ্তাহে মাধ্যমিকের ফলাফল

নির্ধারিত সময়ের আগেই প্রকাশ হতে যাচ্ছে হরতাল-অবরোধে বিঘ্নিত এবারের মাধ্যমিক ও সমমানের পরীক্ষার ফল। চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে ফলাফল ঘোষণা করা হবে বলে শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে। অবরোধ-হরতালের বাধার মধ্যে কোনো পরীক্ষাই নির্ধারিত সময়ে শেষ করা সম্ভব না হলেও, জুনের প্রথম সপ্তাহে অর্থাৎ পরীক্ষা শেষ হওয়ার ৬০ দিনের মধ্যে ফলাফল ঘোষণার সিদ্ধান্ত জানিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী। তবে পরীক্ষা চলাকালীনই খাতা মূল্যায়ন শুরু হওয়ায় এ মাসের শেষ সপ্তাহেই ফলাফল প্রকাশ করবে মন্ত্রণালয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে যেদিন সময় দেবেন, সেদিনই ফলাফল ঘোষণা করা হবে বলে ওই সূত্রটি জানায়। একই সঙ্গে জুন মাসের মধ্যে উচ্চ মাধ্যমিকে ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে জুলাইয়ের এক তারিখ ক্লাশ শুরু হবে বলেও জানা গেছে। এ প্রসঙ্গে ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক শ্রীকান্ত চন্দ্র চন্দ বাংলামেইলকে বলেন, ‘অবরোধ হরতালের কারণে পরীক্ষা নির্ধারিত সময়ে শেষ করা না গেলেও এর ফল প্রকাশে কোনো সমস্যা হবে না। আমরা নির্ধারিত ৬০ দিনের মধ্যেই ফলাফল ঘোষণা করবো। সে লক্ষ্যেই কাজ চলছে।’

গভীর সমুদ্রে ৬৫ দিন মাছ ধরা বন্ধ

আগামী ২০ মে থেকে ২৩ জুলাই মোট ৬৫ দিন গভীর বঙ্গোপসাগরে সকল প্রকার বাণিজ্যিক ট্রলারের মাধ্যমে মাছ ও চিংড়ি ধরা নিষিদ্ধ থাকবে বলে জানিয়েছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী মোহাম্মদ ছায়েদুল হক। মঙ্গলবার দুপুরে সচিবালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা জানান। মন্ত্রী মোহাম্মদ ছায়েদুল হক বলেন, ‘এর মাধ্যমে যদি ১০ থেকে ২০ ভাগও মাছ সংরক্ষণ করা যায় তাতেও আমাদের সমুদ্র এলাকায় বিপুল পরিমাণ মাছ বৃদ্ধি পাবে। আর এতে জাতি উপকৃত হবে।’ আগামী কয়েকদিনের মধ্যে এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে বলেও জানান তিনি।

আসামকে নিয়েই স্থলসীমান্ত বিল অনুমোদন

অবশেষে আসামকে নিয়েই বাংলাদেশের সঙ্গে স্থলসীমান্ত বিল অনুমোদন দিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা। আর সেই বিল পেশ হবে চলতি অধিবেশনেই। তবে আসামকে বাইরে রেখে বিল আনার পরিকল্পনা ছিল কেন্দ্রের। এর তীব্র বিরোধিতা করেছিল কংগ্রেস ও আসামের মুখ্যমন্ত্রী। বিরোধিতার জেরে স্থলসীমান্ত চুক্তি বিলে যুক্ত করা হয় আসামকে। আসামকে যুক্ত করায় বিল পাশে আর কোনো অসুবিধা রইল না। কারণ আসামকে যুক্ত করায় বিল পাশে মিলবে কংগ্রেসের সমর্থনও, মনে করছে রাজনৈতিক মহল। আর স্থলসীমান্ত চুক্তি বিলে আগেই সমর্থন জানিয়েছে তৃণমূল।
ছেলেটি অপ্রকৃতিস্থ। অনেকেই বলে পাগল। বোঝে না কী ভালো, কী মন্দ। রাতে প্রায়ই উদ্দেশ্যহীন ঘোরাফেরা করে। কারো কোনো ক্ষতি করে না। এক রাতে আনমনা হয়ে বিদ্যুতের পোলে লাগানো এক পোস্টার ছিঁড়ে ফেলে। সেটি ছিল এক যুবলীগ নেতার শুভেচ্ছা পোস্টার। বিষয়টা চোখে পড়ে ওই নেতার। আর যায় কোথায়? যুবকটিকে ধরে এনে গাছে ঝুলিয়ে দেন যুবলীগ নেতা। আরো কয়েকজনকে ডাকেন। এরপর চলে বেধড়ক পিটুনি। রাতভর নির্যাতনের পর ভোরে তাকে রাস্তায় ফেলে দেয়া হয়। পরে স্থানীয়রা মারাত্মক আহতাবস্থায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করে দেয়। ঘটনাটি ঘটেছে রোববার রাতে ঠাকুরগাঁও রোড এলাকায়। নির্যাতিত যুবকের নাম সোহাগ খান (২৮)। তিনি ঠাকুরগাঁও রোড এলাকার বাসিন্দা। তার মায়ের নাম মাহমুদা খাতুন। নির্যাতনকারী যুবলীগ নেতার নাম সৈয়দ আহম্মেদ সোহাগ। তিনি ঠাকুরগাঁও রোড এলাকার নতুন বাউন্ডারি পৌরসভার ১১নং ওযার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক। স্থানীয় সূত্রমতে, যুবলীগ নেতা সৈয়দ আহম্মেদ সোহাগ ঠাকুগাঁও রোড এলাকায় বৈদ্যুতিক পিলারে একটি শুভেচ্ছা পোস্টার ঝুলিয়ে দেন। রোববার রাতে অপ্রকৃতিস্থ যুবকটি ভুল করে সে পোস্টার ছিঁড়ে ফেলে। পরে যুবলীগ নেতা তাকে খানকা শরিফ এলাকায় ধরে আনেন। এরপর একটি গাছে ঝুলিয়ে রাতভর চলে তার ওপর শারীরিক নির্যাতন। যুবলীগ নেতা সোহাগসহ আরো কয়েকজন মিলে তাকে পেটানোর পর ভোরে রাস্তায় ফেলে দেয়। সকালে স্থানীয় লোকজন যুবকটিকে উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করে দেয়। নির্যাতিত যুবকের মা মাহমুদা খাতুন বাংলামেইলকে বলেন, ‘আমার ছেলে একজন পাগল। তাকে মারপিট করে অমানবিক আচরণ করা হয়েছে। বর্তমানে আমার ছেলে ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।’
বাংলাদেশের মাটিতে পা রাখার পর প্রস্তুতিম্যাচসহ ৫টি ম্যাচ খেলে ফেলেছে পাকিস্তান। অথচ, এখনও তারা জয়হীন। সফরের সর্বশেষ ম্যাচে ঢাকার মিরপুর শেরে বাংলাদেশ স্টেডিয়ামে আবারও মুখোমুখি হচ্ছে টিম বাংলাদেশের। আগামীকাল (বুধবার) থেকে শুরু হতে যাওয়া এই টেস্ট ম্যাচটিকে পাকিস্তান যতটা না সিরিয়াসলি নিয়েছে, তার চেয়েও যেন বেশি সিরিয়াসলি নিয়েছে বাংলাদেশ অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। শেষ ম্যাচটি মুশফিকের কাছে তাই এক প্রকার ‘ফাইনাল’ই। পুরো সিরিজে পাকিস্তানকে হারিয়ে, জয় বঞ্চিত করে কিভাবে ঢাকা টেস্ট মুশফিকের কাছে ফাইনাল? জবাবে তিনি বললেন, ‘ওয়ানডে ও টি২০ সিরিজে তাদেরকে হারানো এবং খুলনায় এত ভালো পারফরম্যান্স করে ড্র করার পর শেষ টেস্টে ভালো করাটা এখন অত্যাবশ্যক হয়ে দাঁড়িয়েছে। মূলতঃ আগের ম্যাচগুলোতে ভালো করার ধারাবাহিকতা ধরে রাখতেই এই ম্যাচটিতেও আমাদের ভালো করতে হবে।’
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) লোক প্রশাসন বিভাগের শিক্ষিকাকে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের ছাত্র আরজ মিয়া জিয়াকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আজীবন বহিষ্কার করা হয়েছে। তিনি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদকের দায়িত্বে ছিলেন। যৌন নিপীড়ন প্রতিরোধকল্পে সুপ্রিমকোর্টের হাইকোর্ট ডিভিশনের রিট পিটিশনের (নম্বর ৫৯১৬/২০০৮) রায়ে বর্ণিত নির্দেশনার আলোকে অভিযোগ কমিটি (কমপ্লেইন কমিটি) গঠন করা হয়েছিল। কমিটির সুপারিশের পরিপ্রেক্ষিতে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় আইন-২০০৫-এর ১১ (১০) ধারায় বর্ণিত উপাচার্য প্রদত্ত ক্ষমতাবলে আরজ মিয়াকে আজীবনের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে। আরজ মিয়া ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের ২০০৯-১০ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র। প্রসঙ্গত, গত ২৬ এপ্রিল লোক প্রশাসন বিভাগের শিক্ষিকা লুবনা জেবিনের অভিযোগে
সিরিয়ায় গত ১৫ মার্চ আইএসের পক্ষে লড়াই করতে গিয়ে নিহত হয়েছেন ২৫ বছরের হানিফ ওয়াসিম। তার বাড়ি ভরতের হায়দ্রাবাদ শহরে। নিজ দেশে পড়াশোনা শেষ করার পর তিনি গতবছর নভেম্বরে প্রকৌশল বিদ্যায় উচ্চতর ডিগ্রি অর্জনের জন্য লন্ডন গিয়েছিলেন। সেখানেই তিনি জিহাদিদের দ্বারা প্রভাবিত হন এবং তাদের দলে যোগ দিতে সিরিয়ায় পাড়ি জমান।
প্রয়োজনীয় অর্থবরাদ্দ না দেয়ায় অর্থ সঙ্কটে পড়েছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি)। দেশের অন্যতম এ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়কে সংশোধনী বাজেটে অর্থ বরাদ্দ না দেয়ায় আটকে আছে শিক্ষকদের সাড়ে তিন কোটি টাকার পারিতোষিক (খাতা দেখার সম্মানি) ভাতা। সেই সঙ্গে শিক্ষার্থীদের মৌলিক প্রয়োজনীয় শিক্ষা আনুষঙ্গিক ও সাধারণ আনুষঙ্গিক খাতে ১ কোটি ৭৪ লাখ টাকার ঘাটতি রয়ে গেছে। বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, ২০১৪-১৫ অর্থবছরে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল বাজেট ধরা হয়েছিল ৪৮ কোটি ৭৪ লাখ টাকা। প্রারম্ভিক উদ্বৃত্তসহ (বিগত বছরের অব্যবহিত) এ অর্থ বছরে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব আয় ধরা হয়েছিল ১৭ কোটি ৭৫ লাখ টাকা। এরমধ্যে চলতি অর্থবছরের আয় ধরা হয়েছে ১৪ কোটি টাকা। নিজস্ব আয়ের বাইরে বাকি টাকার মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন থেকে (ইউজিসি) পাওয়া গেছে ৩৩ কোটি টাকা। রাজস্ব আয় (বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব আয় আর ইউজিসির বরাদ্ধকৃত টাকা) আর সংশোধিত বাজেটে বরাদ্দ পাওয়ার আশায় ১ কোটি ৭৪ লাখ টাকা ঘাটতি রেখেই মূল বাজেট অনুমোদন দেয়া হয়। কিন্তু সংশোধিত বাজেটে বরাদ্দ না পাওয়ায় চলতি অর্থবছর শেষ হওয়ার দুইমাস আগেই অর্থ সঙ্কটে পড়েছে বিশ্ববিদ্যালয়টি। সূত্র জানায়, শিক্ষকদের পারিতোষিক খাতে প্রয়োজনীয় বরাদ্দ না থাকায় গত ২৫ মার্চ অর্থ কমিটির ২৫তম সভায় শিক্ষকদের মোট পাওনা থেকে ২ কোটি ৮৯ লাখ ৪০ হাজার ৩৪২ টাকা পারিতোষিক ধরার পরও এ খাতে প্রায় সাড়ে তিন কোটি টাকা ঘাটতি রয়ে যায়।
সদ্যজাত মেয়ের নাম রাখার ক্ষেত্রে মা এবং দাদিকে বেশ গুরুত্ব দিয়েছেন রাজকুমার উইলিয়ামস। যদিও এ নিয়ে গুঞ্জন ছিল যে, তিনি তার প্রয়াত মায়ের নামেই মেয়ের নাম রাখবেন। অবশেষে সেটাই সত্যি হল। তবে ডায়ানা হচ্ছে তার নামের শেষ অংশ। শিশু রাজকুমারী পরিচিত হবেন প্রিন্সেস শার্লট অব কেমব্রিজ হিসাবে।

সাকিবের দিকে তাকিয়ে মুশফিক

বাংলাদেশ অধিনায়ক বলেন, ‘মিরপুরে সাকিবের খুবই ভাল রেকর্ড রয়েছে। আগে যে কাজগুলো সে করেছে এগুলো যদি কালকের (বুধবার) টেস্টে করতে পারে তবে সেটা আমাদের জন্য দুর্দান্ত হবে। তাছাড়া আমি তো মুখিয়ে আছি ওর দিকে। ব্যাটিং-বোলিং যদি ও খুব ভাল করতে পারে তাহলে শেষ টেস্ট আমাদেরই হবে।’

জয়ের খোঁজে পাকিস্তান

মঙ্গলবার দুপুর থেকে বিকাল পর্যন্ত টানা অনুশীলন করেছে ওয়াকার ইউনিসের শিষ্যরা। সফরকারীদের অনুশীলনের আগে মিরপুর স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় টেস্ট ম্যাচ-পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে মিসবাহ বলেন, ‘মিরপুরের উইকেট খুলনার চেয়ে ভিন্ন। এখানে ব্যাটসম্যান ও বোলারদের জন্য সমান সুবিধা থাকবে। উইকেটে পেস ও বাউন্স বেশি থাকবে। যেখান থেকে স্পিনাররাও সুবিধা পাবে। এমনটা হলে ফলাফল আমাদের পক্ষেই যাবে।’

উত্তর কোরিয়া আসছে না

আগামী মাসে বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে দুটি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ১১ ও ১৬ জুন যথাক্রমে কিরঘিজস্তান ও তাজিকিস্তানের বিরুদ্ধে মাঠে নামবে মামনুল শিবির। তার আগে কয়েকটি প্রীতি ম্যাচ খেলে নিজেদের ঝালিয়ে নেয়ার পরিকল্পনা রয়েছে বাংলাদেশের। এক ক্ষেত্রে আগামী ৪ জুন বাংলাদেশের বিরুদ্ধে খেলতে রাজি হয়েছে আফগানিস্তান। তবে এর আগে ১৪ মে ঢাকায় বাংলাদেশের সঙ্গে প্রীতি ম্যাচ খেলার কথা ছিল এশিয়ার অন্যতম শক্তিশালী দেশ উত্তর কোরিয়ার। তবে বাফুফে সুত্রে জানা গেছে উত্তর কোরিয়া আসছে না। কি কারণে কোরিয়া আসছে না, এমন প্রশ্নের জবাবে বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাইম সোহাগ বলেছেন, ‘সময় স্বল্পতার কারণেই উত্তর কোরিয়া আসছে না। এর সঙ্গে জড়িত আছে কিছু লজিস্টিক ব্যাপারও।’

রবীন্দ্রমেলায় সম্মাননা পাচ্ছেন আতাউর রহমান

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৫৪তম জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে আগামী ৮ মে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ‘এবি ব্যাংক চ্যানেল আই রবীন্দ্রমেলা’। এতে সম্মাননা জানানো হবে নাট্যব্যক্তিত্ব আতাউর রহমানকে। মঙ্গলবার চ্যানেল আই কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়।

মেজাজ হঠাৎ তুঙ্গে!

অভিমানী মনটা হঠাৎই বেঁকে বসে, মেজাজ উঠে যায় তুঙ্গে। কখনো যুক্তিসঙ্গত কারণে আবার কখনো তুচ্ছ কথায়। কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই সৃষ্টি হয় বাজে পরিস্থিতি। ক্ষণিকের এই উত্তেজনা নষ্ট করে দেয় সুন্দর সম্পর্কগুলো। তাই দরকার নিজেকে শুধরে নেয়া। তাছাড়া, ব্যক্তিত্বকে যদি বিবেচকের সারিতে দাঁড় করাতে চান তবে অবশ্যই রেগে যাওয়া নয়। রেগে যাওয়ার আগে ভাবুন আরও একবার। আর তাই-
রাজধানী ঢাকায় ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের সংখ্যা কত তার সঠিক কোনো পরিসংখ্যান না থাকলেও প্রায় ৭০ হাজার ভবন ভূমিকম্প ঝুঁকিতে আছে বলে জানিয়েছে সরকার। ভূগর্ভস্থ নরম মাটি, বিল্ডিং কোড না মানা ও অপরিকল্পিত নগরায়ণসহ নানা কারণে ঝুঁকিপূর্ণ থাকা এসব ভবন চিহ্নিত করার নির্দেশ দেয়া হলেও অপসারণের বিষয়ে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না। ভবনগুলোতে এখনো বসবাস করছে লাখ লাখ মানুষ। এদের সরিয়ে নেয়ারও উদ্যোগ নেই কারো। সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান দুই সিটি করপোরেশন এবং রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) কেউই এর দায়িত্ব নিতে চাচ্ছে না। ভবন অপসারণের দায়িত্ব নিয়ে সংস্থা তিনটি একে অপরকে দোষারোপ করছে। রাজউক প্রদত্ত ভূমি মন্ত্রণালয়ের এক হিসাবে রাজধানীতে ৭০ হাজারেরও বেশি ভবন ঝুঁকিপূর্ণ রয়েছে। আর সরকারের সমন্বিত দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্মসূচির (সিডিএমপি) এক প্রতিবেদনে দেখা গেছে এর সংখ্যা ৭৮ হাজার। এর মধ্যে শুধু সরকারী ভবনই আছে প্রায় ৫ হাজার। সিডিএমপির সর্বশেষ রিপোর্টে বলা হয়, দক্ষিণ এশিয়ার ভূতাত্ত্বিক অবস্থানের কারণে ভয়াবহ ঝুঁকিতে আছে বাংলাদেশ। এ এলাকায় ইরানের রাজধানী তেহরানের পর বড় ধরনের ভূমিকম্প আঘাত হানতে পারে। শক্তিশালী কোনো ভূমিকম্প আঘাত হানলে ঝুঁকিপূর্ণ ভবনগুলো ধসে পড়ার আশঙ্কার কথাও উল্লেখ আছে ওই প্রতিবেদনে। আর এতে ঘনবসতির শহর রাজধানী ঢাকায় কি পরিমাণ প্রাণহানি ঘটতে পারে তা কল্পনা করা কঠিন কিছু নয়। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্মসূচির জরিপ অনুযায়ী, রাত ২টায় ৭ মাত্রার ভূমিকম্প হলে ঢাকা শহরে ৮৮ হাজার লোকের প্রাণহানি ঘটতে পারে। আর যত মানুষ আহত হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে, তাদের সবার চিকিৎসা দেয়ার প্রস্তুতিও তেমন নেই মহানগরীতে। এত ভয়াবহ আশঙ্কার পরেও কার্যত কাগজে কলমে কয়েকটি সিদ্ধান্ত ছাড়া তেমন কোনো উদ্যোগ নিচ্ছে না সরকার।

ঢাকাতেই ঝুঁকিপূর্ণ ভবন পৌনে এক লাখ

জাল ভোট, কেন্দ্র দখল, সংঘর্ষ ও ব্যাপক অনিয়মের মধ্যে অনুষ্ঠিত হয়েছে ঢাকার দুই (উত্তর ও দক্ষিণ)সিটি ও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচন। এ নির্বাচন ও নির্বাচন কমিশনকে ঘিরে সাধারণ মানুষের মধ্যে তৈরি হয়েছে নানা ধরনের প্রশ্ন। ২০১৪ এর ৫ জানুয়ারি জাতীয় নির্বাচন, উপজেলা নির্বাচন, পাঁচ সিটি নির্বাচন, ২০১৫ এর ২৮ এপ্রিল সিটি করপোরেশন নির্বাচনসহ একের পর এক প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচন করে আস্থা হারাচ্ছে সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান নির্বাচন কমিশন (ইসি)। বিশিষ্টজন থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষ তা-ই মনে করছেন। এমনকি এভাবে চলতে থাকলে গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত রাখার অন্যতম মাধ্যম নির্বাচনের প্রতি মানুষ আস্থা হারিয়ে ফেলবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। অনেকে মনে করছেন, ৫ জানুয়ারি জাতীয় নির্বাচনের পর এবার নির্বাচন কমিশনের আস্থা ফিরিয়ে আনার একটা সুযোগ ছিল। কিন্তু ভোট জালিয়াতি ও কেন্দ্র দখলের সুস্পষ্ট প্রমাণ থাকা সত্ত্বেও তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা না নিয়ে বরং সরকারের ভাষায় কথা বলায় নির্বাচন ব্যবস্থা ও নির্বাচন কমিশনের ওপর মানুষ আরও আস্থা হারিয়ে ফেলবে বলে মনে করছেন বিশিষ্টজনরা। এই নির্বাচন দেশের চলমান রাজনৈতিক সঙ্কটকে আরও বাড়িয়ে দিতে পারে বলেও আশঙ্কা করা হচ্ছে।

আস্থা হারাচ্ছে ইসি, অর্থহীন হয়ে পড়ছে নির্বাচন

দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর গত মঙ্গলবার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ক্ষমতায় এসেছেন নতুন দুই মেয়র। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র হিসেবে জয়ী হয়েছেন প্রয়াত মেয়র মোহাম্মদ হানিফের ছেলে সাঈদ খোকন। আর উত্তর সিটি করপোরেশনে বিজয়ী হয়েছেন ব্যবসায়ী নেতা আনিসুল হক। জনগণের ভোটে বিজয়ী হওয়ার পর তাদের মুখে যেমন হাসি ফুটেছে ঠিক সেই হাসি জনগণের মুখে ফোটানেই এখন বড় চ্যালেঞ্জ এ দুই নগরপিতার। এজন্য তাদের দু’জনকেই ১২টি গুরুত্বপূর্ণ চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হবে।

নয়া নগরপিতার কাঁধে এক ডজন চ্যালেঞ্জ

ঢাকার প্রয়াত মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ হানিফের ছেলে সাঈদ খোকন। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সমর্থন নিয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মির্জা আব্বাসকে বিপুল ভোটে পরাজিত করে নিজের আয়ত্বে নিয়েছেন বাবার প্রিয় চেয়ারটি। যে চেয়ারে বসেই তিনি এখন নগর পরিচালনা করবেন। জয়ের পরপরই নিজের ভবিষ্যৎ কাজের পরিকল্পনা নিয়ে মন খুলে কথা বলেছেন আওয়ামী লীগ ও সহস্র নাগরিক কমিটি সমর্থিত নবনির্বাচিত মেয়র সাঈদ খোকন। তার এই একান্ত সাক্ষাৎকারটি নিয়েছেন বাংলামেইল২৪ডটকমের স্টাফ করেসপন্ডেন্ট সমীরণ রায়।

আমি সাঈদ খোকনই থাকতে চাই