শনিবার, ২৫ অক্টোবর ২০১৪ ।

অজানা আতঙ্কে গ্রেপ্তার

তিনি বলেন, ‘আলাল দলের যুব বিষয়ক সম্পাদক এবং সাবেক সংসদ সদস্য। তার বাসায় নেতাকর্মীরা আসতেই পারে। কিন্তু সরকার সবসময় আতঙ্কের মধ্যে আছে, তাই বিরোধী দলকে দমনের জন্য গ্রেপ্তার হত্যা, গুম, খুন নির্যাতনের পথ বেছে নিয়েছে।’ সরকারকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বিএনপির এ নেতা বলেন, ‘অবৈধ সরকার এইসব অপতৎপরতা বন্ধ না করলে জনগণের সব শক্তি দিয়ে তাদেরকে টেনে নামানো হবে।’ এসময় রিজভী অবিলম্বে মোয়াজ্জেম হোসেন আলালসহ আটক ৮০ জন নেতাকর্মীর মুক্তি দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

আবুধাবিতে প্রধানমন্ত্রী

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, সফরকালে বাংলাদেশ ও ইউএই’র মধ্যে বাণিজ্য, জনশক্তি ও বিনিয়োগ সংক্রান্ত বেশ কয়েকটি চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হবে। এ ক্ষেত্রে দু’দেশের মধ্যে যেসব চুক্তি স্বাক্ষরিত হতে পারে, সেগুলোর মধ্যে রয়েছে ফরেন অফিস কনসাল্টেশন সমঝোতা স্মারক, জনশক্তি রফতানি পুনরায় চালু করতে ইউএই’র একটি আউটসোর্সিং কোম্পানির সাথে সমঝোতা স্মারক, দন্ডপ্রাপ্ত আসামি বিনিময় এবং বিনিয়োগ সুরক্ষা ও সম্প্রসারণ সংক্রান্ত চুক্তি। সফরকালে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় ইউএই’র আল-নাহিয়ান ফাউন্ডেশন কর্তৃক একটি হাসপাতাল স্থাপন, কূটনৈতিক ও সরকারি পাসপোর্টধারীদের ভিসামুক্ত গমনাগমন চুক্তি, উচ্চ শিক্ষা ও বৈজ্ঞানিক গবেষণা বিষয়ক সমঝোতা স্মারক এবং ইউএই দূতাবাসের জন্য ঢাকায় এক খণ্ড জমি হস্তান্তর চুক্তি স্বাক্ষরিত হওয়ার কথা রয়েছে।

বাবার পাশে গোলাম আযমকে দাফন

মানবতাবিরোধী অপরাধে ৯০ বছর কারাদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতের সাবেক আমির গোলাম আযমের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। শনিবার বিকাল ৩টা ২০ মিনিটে তার দাফন সম্পন্ন হয়। মগবাজারে পারিবারিক কবরস্থানে তার বাবা আর ভাইয়ের কবরের মাঝখানে তাকে দাফন করা হয়। এর আগে ইসলামপন্থি বাংলাদেশ সম্মিলিত জোটসহ কয়েকটি সংগঠনের বিরোধিতার মুখে কড়া নিরাপত্তার মধ্যে শনিবার বাদ জোহর বায়তুল মোকাররমে তার নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। তার চতুর্থ ছেলে আব্দুল্লাহিল আমান আযমী জানাজায় ইমামতি করেন। জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমির মকবুল হোসেন ও ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমানসহ জামায়াত নেতারা জানাজায় শরীক হন। এর আগে দুপুর ১টায় তার মরদেহ জানাজার জন্য মগবাজারের বাসা থেকে আলিফ মেডিকেলের লাশবা
বিগত কয়েক বছর যাবত পৃথিবীর বিভিন্ন স্থানে আকস্মিকভাবে সৃষ্টি হচ্ছে গভীর খাদ। হঠাৎসৃষ্ট এসকল খাদের দৈঘ্য প্রস্থে ১ মিটার থেকে ২০০ মিটার পর্যন্ত হতে পারে। এ নিয়ে গণমাধ্যমে আসছে মুখরোচক সব সংবাদ। মানুষের মনে ক্রমশ দানা বাঁধছে শঙ্কা। ভূ-ভাগে অবস্মাৎ সৃষ্ট বিরাটাকার এসব গর্তকে ইংরেজি বলা হয় সিংকহোল। যে ভূমির ওপর মানুষ হেঁটে বেড়াচ্ছে, তা মাটির অসংখ্য স্তরের সবচেয়ে ওপরের স্তর। ওপরের স্তরসহ ধারাবাহিকতা রেখে নিচের স্তরগুলো ক্ষয়প্রাপ্ত হতে থাকলে হঠাৎ সৃষ্টি হতে পারে এসব সিংকহোল। প্রক্রিয়াটিকে দুই ভাগে ভাগ করা যেতে পারে। কার্স্ট প্রক্রিয়া ও সাফোশান প্রক্রিয়া। ভূভাগের উপরস্থ মাটি যদি চুনাপাথর, ডলোমাইট এবং জিপসামে তৈরি পাথুরে মাটি হয়ে থাকে, এবং ঐ অঞ্চলের ভূ-ভাগ যদি নিয়মিত বিরতিতে এসিড বৃষ্টির শিকার হতে থাকে, তবে সেখানে কার্স্ট প্রক্রিয়ায় সিংকহোল তৈরি হতে পারে। উল্লেখকৃত উপাদানে তৈরি পাথরগুলো দীর্ঘদিনের জলস্পর্শে ক্রমশ ক্ষয়প্রাপ্ত হতে হতে একসময় স্থিতি হারিয়ে ফেলতে পারে, যা খুব সহজেই সংলগ্ন স্তরেরও ক্ষতিসাধন করে। একসময় ওপরের চাপ সইতে না পেরে টেঁসে যায়। অনেক পাহাড় সুড়ঙ্গবা গুহাও এ পদ্ধতিতে সৃষ্ট হয়েছে।
বাংলাদেশের স্বাধীনতার আগে বনগাঁ সীমান্ত দিয়ে ট্রেন চলতো কলকাতা থেকে খুলনা পর্যন্ত। অনেক দিন বন্ধ থাকার পর আবারো সেই রুট দিয়েই যাত্রীবাহী ট্রেন চালাতে চায় দুই বাংলা। বনগাঁ সীমান্ত দিয়ে রেল যোগাযোগের অবকাঠামো প্রায় ১০০ বছর ধরেই রয়েছে। ওই লাইন দিয়ে কলকাতা থেকে উত্তরবঙ্গ ও আসামমুখি ট্রেন চলাচল করতো। কিন্তু দেশ ভাগের পর তা বন্ধ হয়ে যায়। তবে এখনো ওই রুটে চলাচল করে মালগাড়ি। নতুন করে যাত্রীবাহী ট্রেন চালুর বিষয়ে আলোচনা করতে শুক্রবার কলকাতায় পৌঁছেছেন বাংলাদেশ রেলের দুই কর্মকর্তা অতিরিক্ত মহাপরিচালক (এডিজি-অপারেশন) শাহ জহিরুল ইসলাম ও অতিরিক্ত মহাপরিচালক খলিলুর রহমান (এডিজি-রোলিং স্টক)। ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশনের এক কর্মককর্তাও রয়েছেন তাদের সঙ্গে।
টেস্ট অলরাউন্ডার হিসেবে কেন বাংলাদেশের সাকিব আল হাসানের নাম সবার শীর্ষে চলে আসে বার বার, তা বোঝা গেল আরেকবার। একই সঙ্গে সাকিব চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিলেন, তার ধার কত! নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে এমন অসাধারণ বোলিং শুধুমাত্র সাকিবের ক্ষেত্রেই মানায়। শনিবার জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে শুধু বলে ঘুর্ণনই তোলেননি সাকিব, একই সঙ্গে অসাধারণ একটি রেকর্ডও গড়ে ফেলেছেন তিনি। ক্যারিয়ারে এখন পর্যন্ত যেসব দেশের বিপক্ষে টেস্ট খেলেছেন বাংলাদেশ অলরাউন্ডার, সবার বিপক্ষেই এক ইনিংসে ৫টি কিংবা এর বেশি উইকেট নেওয়ার রেকর্ড গড়া হল তার।
এছাড়াও খেলাফত মজলিসের আমির অধ্যক্ষ মাওলানা মো. ইসহাক, লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, এনডিপির চেয়ারম্যান গোলাম মোর্তজা, নেজামে ইসলাম পার্টির চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আব্দুর রকিব, জাগপার সাধারণ সম্পাদক খন্দকার লুৎফর রহমান, ইসলামিক পার্টিরচেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আব্দুল মোবিন প্রমুখ জানাজায় শরিক হন। তবে পুলিশের চোখে পলাতক আসামি জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমির মকবুল আহমদ, নায়েবে আমির মুজিবুর রহমান, ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি জেনারেল শফিকুর রহমান, মহানগর আমির রফিকুল ইসলাম, মহানগর নায়েবে আমির হামিদুর রহমান আযাদ, মহানগর সেক্রেটারি নুরুল ইসলাম বুলবুল জানাজায় শরিক হননি।
বাংলাদেশে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠনগুলো একত্রিত হয়ে ‘বাংলাদেশ জিহাদি গ্রুপ’ নামে নতুন একটি সংগঠন তৈরি করেছে। ইতিমধ্যে তারা সংগঠনের লোগো ও গঠনতন্ত্রসহ অনেক কাজই গুছিয়ে এনেছে। হিজবুত তাহরির ছাড়া নিষিদ্ধ প্রায় সব সংগঠনই আছে এ গ্রুপে। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) যুগ্ম কমিশনার মনিরুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। সূত্র জানায়, গত সেপ্টেম্বরে রাজধানীর বাসাবোতে এ বিষয়ে বৈঠকে বসেন নিষিদ্ধ সংগঠনগুলোর বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা। সেখানে চূড়ান্ত করা হয় কোন কোন জেলায় তারা প্রাথমিকভাবে কাজ শুরু করবেন, গঠনতন্ত্র কেমন হবে, কীভাবে নেতা নির্বাচন করা হবে। দেশের বিভিন্ন জেলায় নিষ্ক্রিয় নেতাকর্মীদের ফের সক্রিয় করারও সিদ্ধান্ত হয় বৈঠকে।
গোয়েন্দাদের হাতে এই পর্যন্ত উমরের মতো এতো বড় মাপের বোমা বিশেষজ্ঞ ধরা পড়েনি বলে জানান তিনি। এই উমরকে ষষ্ঠ শ্রেণী থেকে তার পড়াশোনার যাবতীয় ব্যায়ভার বহন করে আসছিল বর্তমানে কারাগারে আটক হরকাতুল জিহাদের নেতা মুফতি আবু সাইদ। এরপর রফিক তার পড়াশোনার দায়িত্ব নেয়। উমরকে উত্তরা থেকে আটক করে ডিবি পুলিশ। এসময় তার কাছ থেকে পাকিস্তানের তৈরি একটি অস্ত্রও উদ্ধার করা হয়।

ফিরলেন সাকিব ফিরল বাংলাদেশ

নিষেধাজ্ঞার কারণে অনেকদিন ক্রিকেটের বাইরে থাকায় সাকিব আল হাসান টেস্ট অলরাউন্ডারের শীর্ষস্থান হারিয়েছেন। তাকে সরিয়ে শীর্ষে উঠেছেন ভারতীয় অলরাউন্ডার রবিচন্দ্র অশ্বিন। শনিবার মিরপুর শেরে-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে দলে ফিরে সাকিব আবারও প্রমাণ দিলেন, সত্যিকারার্থে তিনিই বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। মাত্র ৫৯ রান খরচায় জিম্বাবুয়ের ছয়জন ব্যাটসম্যানকে সাজঘরে ফিরিয়ে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় সেরা বোলিং করেছেন বাংলাদেশের ক্রিকেট অহংকার।

দুই ইনিংসেই ইউনিসের সেঞ্চুরি

অভিমান ভেঙে দলে ফিরেই অসাধারণ ফর্মে পাকিস্তান ব্যাটসম্যান ইউনিস খান। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দুই টেস্টে প্রথম ইনিংসের পর দ্বিতীয় ইনিংসেও সেঞ্চুরির দেখা পেলেন অভিজ্ঞ এই ব্যাটসম্যান। ইউনিসের অপরাজিত ১০৩ রানের ওপর ভর করে অস্ট্রেলিয়ার সামনে ৪৩৭ রানের লিড নিয়ে ইনিংস ঘোষণা করেন পাকিস্তান অধিনায়ক মিসবাহ-উল হক। ইউনিস খান ক্যারিয়ারের ২৬তম সেঞ্চুরি পূরণ করার পরই অবশ্য বিলম্ব করেননি পাকিস্তান অধিনায়ক মিসবাহ-উল হক। অস্ট্রেলিয়াকে দ্বিতীয় ইনিংসে লক্ষ্য বেধে দিলেন ৪৩৮ রান। ইউনিস অপরাজিত ছিলেন ১০৩ রানে। বল খেলেছেন ১৫২টি। ৬টি বাউন্ডারি আর ২ টি ছক্কায় সাজানো ছিল তার ইনিংস। প্রথম ইনিংসেও ১০৯ রানের অনবদ্য একটি স্কোর করেছিলেন পাকিস্তানের এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান।

তামিমের হারাল বাংলাদেশ

শেষ বিকেলে উইকেট কিছুটা কঠিন হয়ে যায়। তবে সেটা প্রথমদিনেই বাংলাদেশ ওপেনার তামিম ইকবালের জন্য যেন আরও কঠিন। না হয় কেন মাত্র ৫ রান তুলতেই পানিয়াঙ্গারারর বলে মাসাকাদজার হাতে ক্যাচ দিয়ে তিনি ফিরে যাবেন! সফরকারী জিম্বাবুয়েকে মাত্র ২৪০ রানের বেধে ফেলার পর একেবারে চাপমুক্ত হয়েই ব্যাট করতে নেমেছিল বাংলাদেশ। সাকিব আল হাসান বল হাতে যে কাজটি করে দিয়েছেন, তার ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারেনি ওপেনাররা। মাত্র ১০ রান তুলতেই তামিম ইকবালের উইকেট হারাতে হয়েছে বাংলাদেশকে। শেষ পর্যন্ত দিন শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১ উইকেট হারিয়ে ২৭ রান। খেলা হয়েছে ১২ ওভার।

হুমায়ূনের জন্মদিনে শাওনের অনিশ্চিত মেঘেদের যাত্রা

আসছে ১৩ নভেম্বর জনপ্রিয় কথা সাহিত্যিক ও নির্মাতা হুমায়ূন আহমেদের জন্মদিন। আর এ জন্মদিন উপলক্ষে মেহের আফরোজ শাওন নির্মাণ করেছেন একটি একক নাটক। নাটকটির নাম 'অনিশ্চিত মেঘেদের যাত্রা'। হুমায়ূন আহমেদের 'জুয়া' গল্পটি অবলম্বনে এ নাটকটি নির্মাণ করা হয়েছে।

যে সাত কারণে বিবাহ বিচ্ছেদ

প্রতিটি সম্পর্কের একটি নিজস্ব গতি এবং ভিন্ন আবেদন থাকে।বিয়ে নামক সম্পর্কটা মাঝে মাঝে তার ষোল আনাই পূরণ করে।এই সম্পর্কে জড়ানো এবং তা বহন করা নারী-পুরুষের জীবনের সবচেয়ে বড় একটি অধ্যায়।একে অপরকে ভালোভাবে জানতে, বুঝতে, এমনকি ভালোবাসার সঙ্গী করে পেতেই বিয়ের আয়েজন। পারিবারিক ও সামাজিক সম্পর্কের এই মেলবন্ধন সন্তান জন্মদানেরও বৈধতা দান করে।এতোকিছু সত্বেও কখনো সম্পর্কধারায় ব্যত্তয় ঘটে।নানা ভুল বোঝাবুঝি, ন্যায় অন্যায়ের জের ধরে বৈধ এ সম্পর্কে ঘটে যায় বিচ্ছেদ।বিবাহ বিচ্ছেদের পেছনে যে সাতটি কারণ ঘনিষ্ঠভাবে জড়িত।তাহল...
বাংলাদেশে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠনগুলো একত্রিত হয়ে ‘বাংলাদেশ জিহাদি গ্রুপ’ নামে নতুন একটি সংগঠন তৈরি করেছে। ইতিমধ্যে তারা সংগঠনের লোগো ও গঠনতন্ত্রসহ অনেক কাজই গুছিয়ে এনেছে। হিজবুত তাহরির ছাড়া নিষিদ্ধ প্রায় সব সংগঠনই আছে এ গ্রুপে। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) যুগ্ম কমিশনার মনিরুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। সূত্র জানায়, গত সেপ্টেম্বরে রাজধানীর বাসাবোতে এ বিষয়ে বৈঠকে বসেন নিষিদ্ধ সংগঠনগুলোর বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা। সেখানে চূড়ান্ত করা হয় কোন কোন জেলায় তারা প্রাথমিকভাবে কাজ শুরু করবেন, গঠনতন্ত্র কেমন হবে, কীভাবে নেতা নির্বাচন করা হবে। দেশের বিভিন্ন জেলায় নিষ্ক্রিয় নেতাকর্মীদের ফের সক্রিয় করারও সিদ্ধান্ত হয় বৈঠকে।

জঙ্গিদের সমন্বিত রূপ ‘বাংলাদেশ জিহাদি গ্রুপ’

মোবাইল ব্যাংকিং অর্থ স্থানান্তরে এক বিপ্লব ঘটিয়ে দিয়েছে। প্রত্যন্ত গ্রামেই মানুষ এখন নিমেষে টাকা পয়সা পাঠাতে পারছে। ব্যাংকিং ব্যবস্থায় এ এক দারুণ অগ্রগতি হলেও তা এখন প্রবাসী আয়ের (রেমিট্যান্স) জন্য এক বড় হুমকি হয়ে দেখা দিয়েছে। মোবাইল ব্যাংকিং এর সুবিধা নিচ্ছে হুন্ডি ব্যবসায়ীরা। বিদেশে থাকা এজেন্ট ও দেশের মোবাইল ব্যাংকিংকে কাজে লাগিয়ে দেশের গ্রাহকদের সহজে টাকা পৌঁছে দিচ্ছে তারা। একে বলা হচ্চে ‘ইলেকট্রনিক হুন্ডি’। এ ইলেকট্রনিক হুন্ডির জনপ্রিয়তা বাড়ার সাথে সাথে কমতে শুরু করেছে বৈধ চ্যানেলে রেমিট্যান্স। দেশব্যাপী ছড়িয়ে পড়া ‘বিকাশ’ই প্রধান হাতিয়ার এই ইলেকট্রনিক হুন্ডির। হুন্ডির এ পদ্ধতি রেমিট্যান্স প্রবাহ ঝুঁকির মধ্যে পড়ছে।

বিকাশ এখন ‘ইলেকট্রনিক হুন্ডি’

ঢাকাকে উত্তর ও দক্ষিণ দু’ভাগে ভাগ করে দু’টি কমিটি নাকি ভাগ না করে একটি কমিটি করা হবে- সেই বিতর্কে আটকে আছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের আন্দোলন সংগ্রামের ভ্যানগার্ড হিসেবে পরিচিত ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন। দীর্ঘদিন ধরে নগর নেতারা কমিটি গঠনের কথা বলে আসছেন। তারা কখনো বলছেন কমিটি হবে আগস্টের পর আবার কখনো বলছেন ঈদের পরে। বাস্তবে এখনো কমিটি ঘোষণা হয়নি। কবে ঘোষণা হবে তাও তারা জানেন না।

এক-দুইয়ে আটকে আ.লীগের নগর কমিটি

বিজয় দিবসের উপহার হিসেবে জাতিকে স্মার্টকার্ড উপহার দেয়ার পরিকল্পনা ছিল নির্বাচন কমিশনের (ইসি)। সে লক্ষ্যে একটি খসড়া পরিকল্পনাও তৈরি করা হয়েছিল। কিন্তু বিভিন্ন জটিলতার কারণে তা আর হচ্ছে না। তবে ২৬শে মার্চ স্বাধীনতা দিবসের উপহার হিসেবে এই স্মার্টকার্ড মানুষের হাতে তুলে দেয়ার পরিকল্পনা করছে (ইসি)। স্মার্টকার্ড সবার হাতে দেয়ার আগে বিশেষ কোনো ব্যক্তিকে দিয়ে এর উদ্বোধন করা হবে। সে লক্ষ্যেই নির্বাচন কমিশনের জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগ কাজ করে যাচ্ছে। নির্বাচন কমিশন সূত্র এ তথ্য বাংলামেইলকে নিশ্চিত করেছে। সূত্র জানায়, স্বাধীনতা দিবসে স্মার্টকার্ড উপহার দেয়ার পরিকল্পনা করছে ইসি। এছাড়া ১৮ বছরের কম বয়সী নাগরিকদেরও জাতীয় পরিচয়পত্র দেয়ার কথা ভাবা হচ্ছে। এরা ভোট দিতে না পারলেও ১৮ বছর পূর্ণ হলেই স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হবে।

স্বাধীনতা দিবসের উপহার স্মার্টকার্ড