শনিবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৫ ।

নেপালে ভূমিকম্পে ৫ শতাধিক নিহত

নেপালে শনিবার সকালে ৭ দশমিক ৯ মাত্রার ভূমিকম্প আঘাত হানে। সিএনএন বলছে, ওই ভূমিকম্পে দেড়শ জন প্রাণ হারিয়েছে বলে আশঙ্কা করছে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। আহত হয়েছে আরো বহু মানুষ। তবে আহতদের নির্দিষ্ট সংখ্যা জানা যায়নি।

মানববন্ধনে মুক্তিযোদ্ধা সংসদের হামলা, আহত ৬

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার গাড়ীবহরে হামলার প্রতিবাদে আয়োজিত বিএনপিপন্থি সংগঠন স্বাধীনতা ফোরাম আয়োজিত মানববন্ধনেও হামলা চালিয়েছেন মুক্তিযোদ্ধা সংসদের নেতাকর্মীরা। গতকাল একই প্রতিবাদে জাতীয়তাবাদী সাংস্কৃতিক দলের মানববন্ধনেও হামলা চালিয়েছিল বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগ। গতকাল কোনো হতাহতের ঘটনা না ঘটলেও এ হামলায় ৬ জন আহত হয়েছেন। শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে স্বাধীনতা ফোরামের মানববন্ধনে এমন ঘটনা ঘটে। ‘জাতীয়তাবাদী দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও’ আন্দোলনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন জানান, ‘মানববন্ধনে সুপ্রিম কোর্ট বার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন আসার কথা ছিল। হামলার সময় মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আহমেদ আজম খানও।’ রিপন বলেন, ‘হামলায় বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য খালেদা ইয়াসমীন, সোহাগ, খালেদ, শাকিলসহ ৬ জন আহত হয়েছেন। মুক্তিযোদ্ধা সংসদের বয়স্ক শতাধিক কর্মী লাঠি সোঠা নিয়ে আমাদের উপর এ অতর্কিত হামলা চালায়।’

কাল খালেদার জরুরি সংবাদ সম্মেলন

দেশের চলমান পরিস্থিতির গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন দিক, বিশেষ করে ঢাকা ও চট্টগ্রামের তিনটি সিটি করপোশনের নির্বাচনী বিষয়াদি নিয়ে আগামীকাল রোববার জরুরি সংবাদ সম্মেলন করবেন খালেদা জিয়া। এদিন দুপুর ২টায় গুলশানে নিজের রাজনৈতিক কার্যালয়ে দেশবাসীর উদ্দেশে বক্তব্য রাখবেন বিএনপি চেয়ারপারসন। শনিবার বিকেলে চেয়ারপারসনের প্রেসসচিব মারুফ কামাল খান স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়েছে। উল্লেখ্য, গাড়িবহর নিয়ে মেয়র প্রার্থীদের পক্ষে খালেদা জিয়ার নির্বাচনী প্রচারণা চালানোতে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। এছাড়া এই আচরণবিধি লঙ্ঘনের বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে রিটার্নিং অফিসারকেও নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। গত রোববার থেকে বিএনপি সমর্থিত মেয়র প্রার্থীদের পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণায় নামেন খালেদা জিয়া। কিন্তু পরের দিন থেকে পর তিন দিন তার গাড়িবহরে হামলা করে সরকার সমর্থকরা। এতে বেশ ক’জন আহত হয় এবং শেষ দিন খালেদা জিয়ার গাড়িও ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এরপর গত বৃহস্পতিবার সরকার সমর্থিত সহস্র নাগরিক কমিটি নির্বাচন কমিশনে গিয়ে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ। এর পরিপ্রেক্ষিতেই কমিশন খালেদার বিরুদ্ধে এ নিষেধাজ্ঞা জারি করলো।
নেপালে শনিবার সকালে ৭ দশমিক ৯ মাত্রার ভূমিকম্প আঘাত হানে। সিএনএন বলছে, ওই ভূমিকম্পে দেড়শ জন প্রাণ হারিয়েছে বলে আশঙ্কা করছে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। আহত হয়েছে আরো বহু মানুষ। তবে আহতদের নির্দিষ্ট সংখ্যা জানা যায়নি।
শক্তিশালী ভূমিকম্পে এখনো পর্যন্ত নেপালে অবস্থানরত কোনো বাংলাদেশি হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। নেপালের বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে এ খবর জানানো হয়েছে। বাংলাদেশিদের খোঁজ রাখতে নেপালের বাংলাদেশ দূতাবাসে একটি হেল্প ডেস্ক খোলা হয়েছে। যোগাযোগ: খান মো. মইনুল হোসেন +৯৭৭৯৮০৮১৮৪০১৪, বাংলাদেশ দূতাবাসের মুখ্য সচিব শামীমা চৌধুরী +৯৭৭৯৮০৮৭৬৫০৭১, রাষ্ট্রদূত মাশফি বিনতে শামস +৯৭৭৯৮৫১০৩৯৩৫২।
পোলিং এজেন্ট হওয়ার পর বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী জয়ী হলেও তাদের যেমন বিপদ, পরাজিত হলেও রয়েছে বিপদের আশঙ্কা। যেহেতু আওয়ামী লীগ বর্তমানে ক্ষমতাসীন তাই বিএনপি প্রার্থী জয়ী হলে আওয়ামী লীগের পরাজিত প্রার্থী ও তার কর্মী বাহিনীর রোষানলে পড়ার ভয় আছে। এছাড়া পুলিশ দিয়ে হয়রানিরও আশঙ্কা আছে। আবার বিএনপি প্রার্থী পারজিত হলেও রয়েছে একই শঙ্কা। অন্যদিকে বিএনপি প্রার্থীর পোলিং এজেন্ট হয়ে কেন্দ্রের ভেতর জাল ভোটের বিরুদ্ধে প্রতিবাদও করলেও পরবর্তীতে আছে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের ভয়।
বিশ্বকাপে দুর্দান্ত পারফরমেন্সে প্রথমবারের মতো কোয়ার্টার ফাইনালে উঠা। দেশে ফিরে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে দাপটের সঙ্গে ওয়ানডে সিরিজ জয়। একমাত্র টি২০তেও টাইগাররা উড়িয়ে দিয়েছে পাকিস্তানকে। সব মিলিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল একটা স্বর্ণসময় পার করছে। তারই রেশ ধরে আজ গনভবনে ক্রিকেটারদের জন্য সংবধর্নার আয়োজন করেছেন প্রধামন্ত্রী শেখ হাসিনা। অনুষ্ঠানে ক্রিকেটারদের মোটা অংকের অর্থ পুরস্কারের ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।
আসন্ন ঢাকা দক্ষিণ ও উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটারদের নির্বিঘ্নে ও নিরাপদে ভোট দেয়ার জন্য ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) পক্ষ থেকে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদারসহ বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। নির্বাচনী উত্তাপ যতদিন থাকবে ততদিন এই আইনশৃঙ্খলা বাহিনী জোরদার থাকবে। সেই সঙ্গে নির্বাচনের সময় ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে বিচারকাজও পরিচালনা করা হবে।
বরাবরই পুরোনো ঢাকায় নির্বাচনী আমেজটা ভিন্ন রকমের। স্থানীয় পঞ্চায়েত নির্বাচন থেকে শুরু করে জাতীয় সংসদ নির্বাচন- সব নির্বাচনেই এখনকার বাসিন্দাদের উৎসাহ একটু বেশিই থাকে। গত কয়েকদিন সেইসব এলাকা ঘুরে দেখা মিললো, নানা মুনির নানা মত। কেউ বলেন দক্ষিণের মেয়র হিসেবে বসবেন ঢাকার প্রথম নির্বাচিত মেয়র মোহাম্মদ হানিফের ছেলে সাঈদ খোকন। যাকে সমর্থন দিয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। মোহাম্মদ হানিফের প্রতি এলাকার মানুষের ভালোবাসার আবেগে সেখানে অনেকাংশেই এগিয়ে সাঈদ খোকন। কিন্তু সেখানকার বাসিন্দাদের যুক্তিতে এগিয়ে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মির্জা আব্বাস। বাসিন্দাদের যুক্তি- বর্তমান সরকারি দল ও এর অঙ্গসংগঠনের নানা অনিয়ম-দুর্নীতি আর সন্ত্রাসের কারণে তারা ভোটের মাঠে এগিয়ে রাখতে চাচ্ছেন ঢাকার সাবেক মেয়র মির্জা আব্বাসকে। তবে সেখানকার বাসিন্দাদের শেষ কথা- যে আমাদের সুখ-দুঃখে পাশে থাকবে তাকেই আমরা ভোট দেবো।

ধোনিকে পেছনে ফেললেন মুশফিক

শুক্রবার একমাত্র টি-২০ তে পাকিস্তানকে সাত উইকেটের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে বাংলাদেশ। এদিন উইকেটের পেছনে দারূণ এক রেকর্ড গড়েন মুশফিকুর রহিম। ভারতীয় অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনিকে পেছনে ফেলে ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত সংস্করণে এখন টাইগার উইকেটরক্ষক চতুর্থ সর্বোচ্চ ডিসমিসালের অধিকারী।

আট কোটি টাকার পুরস্কার পাচ্ছে টাইগাররা

বিশ্বকাপে দুর্দান্ত পারফরমেন্সে প্রথমবারের মতো কোয়ার্টার ফাইনালে উঠা। দেশে ফিরে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে দাপটের সঙ্গে ওয়ানডে সিরিজ জয়। একমাত্র টি২০তেও টাইগাররা উড়িয়ে দিয়েছে পাকিস্তানকে। সব মিলিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল একটা স্বর্ণসময় পার করছে। তারই রেশ ধরে আজ গনভবনে ক্রিকেটারদের জন্য সংবধর্নার আয়োজন করেছেন প্রধামন্ত্রী শেখ হাসিনা। অনুষ্ঠানে ক্রিকেটারদের মোটা অংকের অর্থ পুরস্কারের ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

গণভবনে যাচ্ছেন মাশরাফিরা

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের ওয়ানডে ও টি-২০ দলকে গণভবনে মধ্যাহ্নভোজনের দাওয়াত দিয়েছেন। শনিবার বেলা সাড়ে ১২টায় মাশরাফিদের গণভবনে ডেকে পাঠান তিনি।

অভিনয়ে ফিরতে চান জাফর ইকবালের দীপু

১৯৮৪ সালে কথাসাহিত্যিক মুহাম্মদ জাফর ইকবাল রচনা করেন কিশোর উপন্যাস ‘দীপু নাম্বার টু’। তারও প্রায় দশ বছর পর চিত্র পরিচালক মোরশেদুল ইসলাম এই উপন্যাস অবলম্বনে নির্মাণ করেন ‘দীপু নাম্বার টু’ ছবিটি। এতে প্রধান চরিত্র দীপুর ভূমিকায় অভিনয় করেন কিশোর অরুণ সাহা। তাকে নিয়েই আমাদের আজকের ফেস টু ফেস।

ভূমিকম্পে জরুরি সাবধানতা

হঠাৎ করে মাথায় চক্কর দিলে বরাবরই পুষ্টিহীনতাকে দায়ি করা চলবে না। ভূমিকম্পের কারণে শুধু মাথা নয় পুরো ঘরময় দুলতে থাকে। সহনীয় মাত্রায় থাকলে কোনো রকম ক্ষয়ক্ষতি ছাড়াই প্রাণে বেঁচে যাওয়া সম্ভব। কিন্তু ভূমিকম্পের মাত্রাটা বেশি হলে ঘটতে পারে নানা অঘটন। তাই আগে থেকে আমাদের কিছু প্রস্তুতি নিয়ে রাখা উচিৎ।
বরাবরই পুরোনো ঢাকায় নির্বাচনী আমেজটা ভিন্ন রকমের। স্থানীয় পঞ্চায়েত নির্বাচন থেকে শুরু করে জাতীয় সংসদ নির্বাচন- সব নির্বাচনেই এখনকার বাসিন্দাদের উৎসাহ একটু বেশিই থাকে। গত কয়েকদিন সেইসব এলাকা ঘুরে দেখা মিললো, নানা মুনির নানা মত। কেউ বলেন দক্ষিণের মেয়র হিসেবে বসবেন ঢাকার প্রথম নির্বাচিত মেয়র মোহাম্মদ হানিফের ছেলে সাঈদ খোকন। যাকে সমর্থন দিয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। মোহাম্মদ হানিফের প্রতি এলাকার মানুষের ভালোবাসার আবেগে সেখানে অনেকাংশেই এগিয়ে সাঈদ খোকন। কিন্তু সেখানকার বাসিন্দাদের যুক্তিতে এগিয়ে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মির্জা আব্বাস। বাসিন্দাদের যুক্তি- বর্তমান সরকারি দল ও এর অঙ্গসংগঠনের নানা অনিয়ম-দুর্নীতি আর সন্ত্রাসের কারণে তারা ভোটের মাঠে এগিয়ে রাখতে চাচ্ছেন ঢাকার সাবেক মেয়র মির্জা আব্বাসকে। তবে সেখানকার বাসিন্দাদের শেষ কথা- যে আমাদের সুখ-দুঃখে পাশে থাকবে তাকেই আমরা ভোট দেবো।

আবেগে খোকন, যুক্তিতে আব্বাস

এবারের নির্বাচনে ঢাকা উত্তরের মেয়র প্রার্থী ১৬ জন। তবে এই অঞ্চলে মেয়র প্রার্থী হিসেবে বেশি গুরুত্ব পাচ্ছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত আনিসুল হক (দেয়াল ঘড়ি), বিএনপি সমর্থিত তাবিথ আউয়াল (বাস), জাতীয় পার্টির সমর্থিত বাহাউদ্দিন আহমেদ বাবুল (চরকা) এবং গণসংহতি আন্দোলন সমর্থিত জুনায়েদ সাকি (টেলিস্কোপ)। নানান কৌশলে ভোটের প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন তারা। তবে ভোটারদের দৃষ্টি আকর্ষণে এগিয়ে আছেন আওয়ামী সমর্থিত প্রার্থী আনিসুল হক। তাবিথ আউয়ালও তেমন পিছিয়ে নেই। তিনি নিঃশ্বাস ফেলছেন আনিসের ঘাড়ের ওপর। গত শনিবার বিকেলে পূর্ব রামপুরার জাকের রোডের নূরে আলমের কাছে জানতে চাওয়া হলো তিনি ভোট দেবেন। তিনি বললেন, তার সিদ্ধান্ত নিতে আরো কয়েক দিন সময় লাগবে। তিনি পর্যবেক্ষণে আছেন। তবে ওই এলাকার ওষুধ ব্যবসায়ী জয়ধর জানান, তিনি ভোট দেবেন আনিসকেই। আনিস একজন ব্যবসায়ী। এফবিসিআিইয়ের সাবেক নেতা। তার ভাষায় ‘আনিস অনেকটা মিশুক ও মিষ্টভাষী’। তার পাশের দোকানদার নূরে আলমের কাছে ভোটের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘মেয়র পদে দুইজন (আনিস- তাবিথ) সমান সমানই আছেন।’ একটু এগুলে চন্দন নামে আরেকজন বলেন, ‘এখনও কাউকে ভোট দেয়ার সিদ্ধান্ত নিইনি। কাকে ভোট দেবো। দুইজনের একজনকেও তো চিনি না!’

আনিসের ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছেন তাবিথ

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার (ডিপিইও) ক্ষমতা খর্ব করে সংশোধন করা হচ্ছে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক বদলি নীতিমালা। ডিপিইওর হাতে বদলির একক ক্ষমতা দেয়ার এক মাসের মধ্যে এ নীতিমালা সংশোধন করা হচ্ছে। গত মার্চে বদলি নীতিমালা জারির পরপরই এর অপব্যবহার হয়েছে বলে অভিযোগ এসেছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কাছে। একই সঙ্গে অভিযোগ করেছে মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি ও ক্ষমতাসীন দলের সংসদ সদস্যরা। সংসদীয় স্থায়ী কমিটির মতামত ছাড়া নীতিমালা জারির কারণ জানতে চাওয়া হয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রীর কাছে। একই কারণে মন্ত্রণালয়ের শীর্ষ কর্মকর্তাদেরও সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে তোপের মুখে পড়তে হয়েছে। মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. জ্ঞানেন্দ্র নাথ বিশ্বাস বুধবার বাংলামেইলের কাছে বদলি নীতিমালা সংশোধনীর বিষয়টি স্বীকার করেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় কমিটির মতামত নিয়ে সহসাই প্রাথমিক শিক্ষকদের বদলির সংশোধিত নীতিমালা জারি করা হবে। ইতোমধ্যেই নীতিমালার খসড়া প্রস্তুত করে মন্ত্রীর কাছে পাঠানো হয়েছে। সংসদীয় কমিটির মতামত নিয়ে সংশোধিত নীতিমালার প্রজ্ঞাপন আকারে জারি করা হবে।’ জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার ক্ষমতা খর্ব করা ছাড়াও আরো বেশ কিছু সংশোধনী আনা হচ্ছে বদলি নীতিমালায়। মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, চলতি নীতিমালায় সংযুক্তির সর্বোচ্চ সময়সীমা এক বছর বলা হলেও, সংশোধিত নীতিমালায় কোনো সময়ের উল্লেখ থাকবে না। জেলা সদর ও সদর সংলগ্ন পৌর সভায় বদলির সুযোগ বাতিল করা হবে। এর পাশাপাশি সিটি করপোরেশন এলাকা ও পাশ্ববর্তী থানায়ও বদলির সুযোগও বাতিল করা হচ্ছে। যেমন- ঢাকার পার্শ্ববর্তী এলাকা কেরানীগঞ্জ, সাভার, দোহার, সিদ্দিরগঞ্জ, আড়াই হাজার এলাকায় বদলি করা যাবে না। সূত্রটি আরো জানায়, মার্চ মাসে মন্ত্রণালয় নীতিমালা সংশোধনের আগে আড়াই শতাধিক প্রাথমিক শিক্ষকদের রাজধানীর বিভিন্ন স্কুলে সংযুক্ত বদলির আদেশ দেয়া হয়েছিল। জেলা ও থানা পর্যায়ের বদলির ক্ষেত্রে নীতিমালায় প্রাপ্ত ক্ষমতার অপব্যবহার করেন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তারা। কর্মকর্তারা মন্ত্রণালয়ের দেখনো পথ ধরে একের পর এক সংযুক্ত বদলির আদেশ দিয়েছিলেন। এর ফলে অনেক শিক্ষকদের শাস্তিমূলক বদলিরও ঘটনার অভিযোগও মন্ত্রণালয়ে এসেছে। এছাড়াও মন্ত্রণালয় প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের (ডিপিই) মাধ্যমে বদলির নীতিমালা জারির পর গত এক মাসে সারাদেশে কতজন শিক্ষককে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারে সংযুক্ত বদলির আদেশ দিয়েছেন তারও একটি তালিকা চেয়ে পাঠিয়েছে মন্ত্রণালয়। এর ফলে কোনো ব্যক্তি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন কিনা সে বিষয়েও অনুসন্ধান করবে মন্ত্রণালয়।

খর্ব হচ্ছে জেলা শিক্ষা অফিসারের ক্ষমতা

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ এবং চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনের প্রচারণা তুঙ্গে। এ যেন জাতীয় নির্বাচন- মনে হচ্ছে ব্যালট পেপারে নৌকা আর ধানের শীষ প্রতীক! কাগজে কলমে এটি স্থানীয় সরকার নির্ধারণের ভোট। কিন্তু দেশের প্রধান দুই রাজনৈতিক দলের তৎপরতা আর ভোটারদের মনোভাব- সব মিলিয়ে তিন সিটি করপোরেশন নির্বাচন যেন রূপে নিয়েছে জাতীয় নির্বাচনে। স্থানীয় সরকার নির্বাচনে রাজনৈতিক দলগুলোর অংশ নেয়া আইনে নিষিদ্ধ থাকলেও, আইনকে পাশ কাটিয়ে নানা রূপে পরোক্ষভাবে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি, জামায়াত এবং বাম ও অন্যান্য ধর্মভিত্তিক রাজনৈতিক দল। রয়েছে সিপিবি, বিকল্পধারা, জাসদের মতো ছোট ও মাঝারি দলগুলো। নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগে থেকেই দলীয় প্রার্থী মনোনয়নের কার্যক্রম শুরু করে প্রধান প্রধান রাজনৈতিক দলগুলো। দলীয় প্রধান স্বয়ং চূড়ান্ত করে দিয়েছেন মেয়র পদপ্রার্থী। একই এলাকায় দলের একাধিক মেয়র প্রার্থী থাকলে তাদের ডেকে সমঝোতা করা হয়েছে। এমনকি কাউন্সিলর পদে একক প্রার্থী নিশ্চিত করতে বাকিদের মনোনয়ন প্রত্যাহারে বাধ্য করার মতো ঘটনাও ঘটেছে। কোনো কোনো ক্ষেত্রে দলে ভালো পদ দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েও তাদের নিবৃত্ত করা হয়েছে।

তাহলে প্রধানমন্ত্রীর দাবিই ফললো!