বৃহস্পতিবার, ২৯ জানুয়ারি ২০১৫ ।

সুপ্রিমকোর্টের রায় সম্পূর্ণ অনৈতিক

রাষ্ট্রীয় পদমর্যাদাক্রমের (ওয়ারেন্ট অব প্রিসিডেন্স) বিষয়ে সুপ্রিমকোর্টের দেয়ার রায়কে সম্পূর্ণ অনৈতিক বলে অভিহিত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, এ ধরনের রায় রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানের মধ্যে অসঙ্গতি তৈরি করবে। বুধবার সংসদ অধিবেশনে এক সংসদ সদস্যের সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, ‘আমি বলবো, এ ধরনের রায় সম্পূর্ণরূপে অনৈতিক।’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘জেলা আদালতের বিচারকদের পদমর্যাদা যদি সচিব পদমর্যাদার হয়, তাহলে উচ্চ আদালদের বিচারপতির মর্যাদা রাষ্ট্রপতির উপরে চলে যাবে। তাহলে প্রশাসনে সমন্বয়হীনতা তৈরি হবে। আদালত যদি নিজেকে নিজে লাভবান করে, তাহলে তা সমীচীন হবে না।’

সাক্ষাৎ দিতে না পারায় ক্ষমাপ্রার্থী খালেদা

দেশবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর আকস্মিক মৃত্যুতে প্রবাসী, দেশবাসী ও বন্ধুপ্রতীম দেশের প্রতিনিধিরা সমবেদনা ও সহমর্মিতা জানানোয় সবার প্রতি গভীর কৃতজ্ঞা জানিয়েছেন তিনি। ছেলের আকস্মিক মৃত্যুতে অত্যন্ত ভেঙে পড়ায় অনেকের সঙ্গে দেখা করতে পারেননি বলে দুঃখ প্রকাশ করেছেন তিনি। পরিস্থিতি বিবেচনায় সবাই বিষয়টিকে ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন বলে তিনি আশা করেছেন। সবশেষে ছোট ছেলে কোকোর জন্য সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন খালেদা জিয়া।

সংসদে মাজার নিয়ে দুই এমপির ঝগড়া

রাজধানী মিরপুরে অবস্থিত শাহ আলী মাজার পরিচালনা নিয়ে ঝগড়ায় জড়িয়ে পড়েছেন দুই সংসদ সদস্য। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে হাতাহাতির উপক্রম হয়। বুধবার জাতীয় সংসদে অনুষ্ঠিত ধর্ম মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়। পরে কমিটির সভাপতি বজলুল হক হারুনের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়। বিতণ্ডায় জড়ানো দুই সংসদ সদস্যের একজন হলেন তরিকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান ও চট্টগ্রাম-২ আসনের সংসদ সদস্য নজিবুল বশর মাইজভাণ্ডারি ও অন্যজন আওয়ামী লীগের ঢাকা-১৪ আসনের আসলামুল হক। বৈঠক সূত্রে জানা যায়, গত বৈঠকে মিরপুরের শাহ আলী মাজারের সম্পত্তি রক্ষণাবেক্ষণের জন্য নজিবুল বশরকে আহ্বায়ক করে একটি কমিটি গঠন করা হয়। সেই কমিটিতে স্থানীয় সহকারি কমিশনার (ভূমি), স্থানীয় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, স্থানীয় সংসদ সদস্যের প্রতিনিধিসহ আরও অনেককে রাখা হয়েছে। কিন্তু কমিটির এমন সিদ্ধান্তে নাখোশ হন স্থানীয় সংসদ সদস্য আসলামুল হক। তিনি এমন সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেন। বৈঠকে তিনি বলেন, ‘আমি ওই এলাকার এমপি। আমাকে না জানিয়ে এমন সিদ্ধান্ত কেন নেয়া হল?’ কথার এক পর্যায়ে তিনি কিছুটা উত্তেজিত হয়ে পড়েন এবং নজিবুল বশরকে কটাক্ষ করে বক্তব্য দিতে শুরু করেন। তখন নজিবুল বশরের সঙ্গে আসলামুল হকের তর্ক বিতর্ক শুরু হয়। এক পর্যায়ে আসলামুল হক চেয়ার থেকে দাঁড়িয়ে নজিবুল বশরের দিকে তেড়ে আসতে উদ্যত হন। তখন নজিবুল বশর আত্মপক্ষ সমর্থন করেন এবং বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীর নজরে নেয়ার কথা বলেন। কমিটির সভাপতি বজলুল হক হারুন তখন আসলামকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘এখানে সবাই সংসদ সদস্য। সবার মর্যাদা সমান। আপনার কোন বক্তব্য থাকলে শান্তভাবে বলেন। আমরা আপনার বক্তব্য শুনবো।’
নিজের কর্মদক্ষতা সম্পর্কে সচেতন হোন। স্বাস্থ্যের দিকে নজর রাখলে অনাকাঙ্ক্ষিত স্বাস্থ্যহানি থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে। নিজের আচরণ নিয়ে নিজেকে প্রশ্ন করুন আর যে আচরণগুলো আপনার আশপাশের মানুষের সঙ্গে দূরত্ব সৃষ্টি করে তা পরিহার করুন। আজকের দিনে অনাকাঙ্ক্ষিত কিছু ঘটতে পারে যা আপনার জীবনের ভারসাম্যতা ফিরিয়ে আনবে। অর্থপ্রাপ্তির সম্ভাবনা আছে।
বাংলাদেশে কবে আন্তর্জাতিক ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হয়েছে, তার তথ্য জানতে বিভিন্ন আর্কাইভে ঘুরতে হবে আপনাকে। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) দেয়া তথ্যমতে, প্রায় ১৫ বছর পর নিজেদের আয়োজনে এই প্রথম অনুষ্ঠিত হচ্ছে কোন একটি আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট। অথচ, এই একটি টুর্নামেন্ট করতে গিয়েই নানা অব্যবস্থাপনার পরিচয় দিচ্ছে বাফুফে। যার শিকার হতে হলো টুর্নামেন্ট কাভার করতে যাওয়া সাংবাদিকদেরও। বৃহস্পতিবার থেকেই মাঠে গড়াচ্ছে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ টুর্নামেন্ট। ছয় জাতির অংশগ্রহনে এই টুর্নামেন্টের উদ্ধোধন হবে সিলেট স্টেডিয়ামে। যেখানে প্রথম ম্যাচেই মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ ও মালয়েশিয়া।
ছোট মাথার চুল। দীর্ঘদিন না খাওয়া রোগাটে শরীর। চোখ দুটি কোঠরাগত। নিজের নাম-পরিচয়টাও বলতে পারে না মানসিক প্রতিবন্ধী ওই কিশোরী। ৫ দিন আগে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে সন্তান প্রসব করে সে। বুধবার বিকেলে ২৬ নম্বর ওয়ার্ডে ওই শিশুটিকে বুকে নিয়ে আদর করতে দেখা গেলো তার মাকে। শিশুটি কে? জিজ্ঞাসা করতেই অস্পৃষ্ট ভাষায় আমার মাইয়্যা বলে পরিচয় করে দেন। শিশুটিকে তিনি ‘এ আমার মনু’ ডেকে আদর করেন। কেউ নিতে চাইলে সন্তানটি বুকের সঙ্গে ভালোভাবে আগলিয়ে রাখে। সন্তানের বাবা কে? এ বিষয়ে ওই নারী কিছুই জানাতে পারেননি। প্রতিবন্ধী নারীকে রামেক হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসেস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করা হয়েছে ও নবজাতককে ২৬ নম্বর নবজাতক ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। এখন ওই প্রতিবন্ধী কিশোরী ও নবজাতককে নিয়ে বিপাকে পড়েছেন রামেক কর্তৃপক্ষ। রামেক সূত্র জানায়, প্রায় দুই মাস আগে হাসপাতালের ২২ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি হয় ওই সন্তানসম্ভবা প্রতিবন্ধী। এরপর থেকে রামেক হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়নে চিকিৎসা চলে তার। ৫ দিন আগে ২২ নম্বর ওয়ার্ডেই মেয়ে সন্তানের জন্ম দেন ওই নারী। শিশুটি জন্মের পর ওই ২৬ নম্বর ওয়ার্ডে রাখা হয়। যখন প্রয়োজন পড়ে ওসিসি থেকে ওই কিশোরী গিয়ে শিশুটিকে দুধ খাওয়ায়। এদিকে নবজাতকটির কেউ না থাকায় ওই ওয়ার্ডের সেবিকাও পড়েছেন বিপাকে।
আসছে ভাষার মাস। মাসজুড়ে চলবে অমর একুশে বইমেলা। আর এই মাসেই একটি বিশেষ দিন শুধু ভালোবাসার। ভ্যালেন্টাইন ডে। দিনটি উপলক্ষে দেশের অন্যতম নিউজ পোর্টাল বাংলামেইল২৪ডটকম এবং অন্যতম প্রকাশনী সংস্থা অ্যাডর্ন পাবলিকেশন যৌথভাবে এক ভিন্নধর্মী আয়োজন হাতে নিয়েছে। বিশেষ এ আয়োজনের নাম ‘বই ও ভালোবাসা’। পাঠক বই ও ভালোবাসা নিয়ে গল্প লিখে পাঠিয়ে দিন আমাদের ঠিকানায়। লিখতে পারেন আপনার জীবনের বাস্তব অভিজ্ঞতাও। লেখা পাঠানো যাবে ১২ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।
লাগাতার অবরোধ প্রত্যাহার ও আলোচনায় বসার দাবিতে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বীর উত্তম অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন। বর্তমান সঙ্কটময় অবস্থা থেকে পরিত্রাণের লক্ষ্যে বুধবার দুপর থেকে মতিঝিলে নিজ দলীয় কার্যালয়ের সামনে লাগাতার অবস্থান শুরু করেন তিনি। দলের যুগ্ম-সম্পাদক ইকবাল সিদ্দিকী বাংলামেইলকে বলেন, ‘দেশের বর্তমান সঙ্কটময় অবস্থা থেকে পরিত্রাণের লক্ষ্যে কাদের সিদ্দিকী এই উদ্যোগ নিয়েছেন। সমাধান না আসা পর্যন্ত তিনি দুপুর থেকেই দলীয় কার্যালয়ের সামনে নিরবচ্ছিন্নভাবে অবস্থান কর্মসূচি পালন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। অবস্থান কর্মসূচিতে পালনকালে দলের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান বীরপ্রতীক, সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম দেলোয়ারসহ কেন্দ্রীয় নেতারা তার সঙ্গে রয়েছেন।
সড়ক, পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সংসদে অভিযোগ করে বলেন, ‘সাধারণ মানুষ মাঝে মাঝে আইন মানলেও অসাধারণরা আইন মানে না। এসব অসাধারণ ভিভিআইপি, ভিআইপি ব্যক্তিরা রাস্তার যেদিক দিয়ে খুশি সেদিক দিয়ে গাড়ি চালায়। যেখানে সেখানে গাড়ি রেখে রাস্তা অবরোধ করে যানজট সৃষ্টি করে।’ বুধবার দশম জাতীয় সংসদের পঞ্চম অধিবেশনে একেএম রহমতউল্লাহর (ঢাকা-১১) ৭১ বিধিতে দেয়া নোটিশের উত্তর দিতে গিয়ে মন্ত্রী এ অভিযোগ করেন। তিনি বলেন, ‘কাজের লোকজনও অনেক সময় জাতীয় সংসদের স্টিকার লাগানো গাড়ি নিয়ে বাজারে যায়। আমরা যারা আইন প্রণেতা তারাই আইন মানি না। এসব বন্ধ করতে হবে।’ বিআরটিসির প্রসঙ্গ টেনে মন্ত্রী বলেন, ‘সর্ষের মধ্যে ভূত ছিল। এখন বিআরটিএকে অনেকটা দুর্নীতি মুক্ত করা সম্ভব হয়েছে। আগে বিআরটিএতে না গিয়েই ঘরে বসে লাইসেন্স পাওয়া যেত। টাকা ছাড়া কোনো কাজ হত না। বিআরটিসির ভূত ৫০ শতাংশ কমাতে পেরেছি, চেষ্টা করছি এটিকে দুর্নীতি মুক্ত করতে। তবে সময় লাগবে।’

উইকেটের অতন্দ্র প্রহরী

উইকেটের পেছনে তাদের দাঁড়িয়ে থাকতে হয় অতন্দ্র প্রহরীর মতো। বোলার কিংবা ফিল্ডাররা এদিক-ওদিক নড়াচড়ার সুযোগ পান কিন্তু একজন উইকেটকিপারের সে সুযোগ মেলে না। পুরোটা সময় সতর্ক দৃষ্টি রাখতে হয়, এই বুঝি বল ব্যাটে চুমু খেয়ে চলে এলো উইকেটের পেছনে! অমনিই বাজ পাখির মত ঝাঁপিয়ে পড়া। শুধু ব্যাটে বল চুমু খেলেই নয়, বোলারের প্রতিটি বলকেই গ্লাভস বন্দী করে ফেরত পাঠাতে হয় তাকে। এরপর আবার ব্যাট হাতে নামতে হয়। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা গেছে, উইকেটরক্ষকরা উপরের দিকেই ব্যাটিং করে থাকেন। বিশ্বকাপে সেরা উইকেরক্ষক ব্যাটসম্যান কারা এই লেখায় খোঁজা হয়েছে তাদেরকেই। বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে ব্যাট হাতে কমপক্ষে ২০০ রান এবং ১০টি ক্যাচ বা স্ট্যাম্পিং।

মালয়েশিয়াকে হারালেই ৩০ লাখ টাকা

বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ টুর্নামেন্ট আয়োজনই নয় শুধু একই সঙ্গে নিজেদের খেলা দিয়েও চমকে দিতে চায় বাংলাদেশ। ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফের) এ নিয়ে চেষ্টার অন্ত নেই। ফুটবলারদের অনুপ্রানিত করতে অনুপ্রেরণামূলক নানান কথার পাশাপাশি মোটা অংকের অর্থ পুরস্কারও ঘোষণা করলেন বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন। উদ্বোধনী ম্যাচেই যদি মালয়েশিয়াকে হারাতে পারে, তাহলে মামুনুলদের জন্য পুরস্কার হিসেবে থাকছে নগদ ৩০ লাখ টাকা। তবে আজ সিলেটে ফুটবলারদের অনুশীলনে হাজির হয়ে দেশের জন্যই খেলতে ফুটবলারদের অনুপ্রানিত করেন বাফুফে সভাপতি। ৬ জাতির এই টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের লক্ষ্য চ্যাম্পিয়নশিপ নয়। বড়জোর সেমিফাইনাল। দীর্ঘ ১৫ বছর পর যার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ফিরে এলো বঙ্গবন্ধু কাপ সেই কাজী সালাউদ্দিনের ইচ্ছে মামুনুলরা অন্তত সেমিফাইনাল খেলুক।

‘ম্যান ইউ’র কথা কল্পনাও করি না’

শেষ কয়েক মাস ধরেই দলবদলের গল্পে একটা গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে নাকি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে পা বাড়াতে পারেন রিয়ালের সুপারস্টার গ্যারেথ বেল। কিন্তু নিজেই সে জল্পনায় জল ঢাললেন ওয়েলশম্যান।

এফডিসিতে যেতে ইচ্ছে করে না: অরুণা

চলচ্চিত্র নাটক এবং যাত্রা তিন মাধ্যমেই কাজ করছেন অরুণা বিশ্বাস। অভিনয়ের পাশাপাশি করছেন উপস্থাপনা এবং নাটক নির্মাণ। সাম্প্রতিক কাজ ও চিন্তা নিয়ে অরুণা বিশ্বাস কথা বলেছেন বাংলামেইলের সঙ্গে। আজকের ফেস টু ফেসের অতিথি তিনি।

পুরুষের চেয়ে নারী কেন বেশিদিন বাঁচে?

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে দাম্পত্য জীবনের শেষ দিকে অধিকাংশ নারীকেই একা থাকতে হয়। প্রকৃতির নিয়ম মেনে যুগের পর যুগ নারীরা যেন তাদের সঙ্গী হারিয়ে বিধবা জীবন পার করছেন। অপরদিকে পুরুষদের ক্ষেত্রে এই মাত্রাটা উল্লেখযোগ্যহারে কম দেখা যায়। কারণ হিসেবে দেখা গেছে, পুরুষরা নারীকে একা করে আগেভাগেই পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করেন। এই প্রবণতা শুধু বাংলাদেশে নয়, পৃথিবীর অন্যান্য দেশেও রয়েছে সমান হারে।
চলমান হরতাল-অবরোধে রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশে একের পর এক যানবাহনে আগুন দেয়া হচ্ছে। পুড়িয়ে মারা হচ্ছে নিরীহ মানুষকে। আগুন দেয়ার সময় ব্যবহার করা হচ্ছে গান পাউডার। আগুন দিয়ে দুর্বৃত্তরা চোখের নিমিষে সটকে পড়ছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কঠোর নিরাপত্তা ও সতর্ক প্রহরাও তাদের রুখতে পারছে না। দেশে বিভিন্ন সময়ে আন্দোলনের নামে গান পাউডার ব্যবহার করে মানুষ পুড়িয়ে হত্যার ঘটনা ঘটেছে। গত কয়েক বছরে এর ব্যবহারের মাত্রা অনিয়মিত হলেও সাম্প্রতিক সময়ে তা বৃদ্ধি পেয়েছে। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, যানবাহনে আগুন দেয়ার ক্ষেত্রে দুর্বৃত্তরা প্রধানত পেট্রোল ও গান পাউডার ব্যবহার করছে। গান পাউডার ব্যবহার করায় আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে এবং তার ক্ষয়ক্ষতি ও ভয়াবহতা বাড়ছে। পেট্রোল সবার কাছে পরিচিত হলেও গান পাউডার নিয়ে মানুষের মধ্যে কৌতূহল রয়েছে। কারো কারো প্রশ্ন কোথায় ব্যবহার হয় এই গান পাউডার? দুর্বৃত্তদের হাতেই বা কিভাবে পৌঁছে যাচ্ছে এই পাউডার? কিভাবে এতো শক্তিশালী বিস্ফোরকে পরিণত হয় এটি?

প্রাণঘাতী গান পাউডার আসলে কী?

দেশের একমাত্র রাষ্ট্রায়ত্ত মোবাইল অপারেটর টেলিটক থ্রিজি সেবা চালু করার পর এখন গ্রাহক সংখ্যা বাড়ছে। যদিও অন্য অপারেটরদের তুলনায় গ্রাহক সংখ্যা থেকে পিছিয়ে আছে টেলিটক। একমাত্র রাষ্ট্রয়াত্ব অপারেটর টেলিটক প্রথম থ্রিজি সেবা চালু করলেও সাফল্য তুলনামূলকভাবে কম। ২০১৪ সালের নভেম্বর পর্যন্ত ৩৮ লাখ গ্রাহক টেলিটকের (বিটিআরসির তথ্য মতে)। কোন পথে এগুচ্ছে টেলিটক, গ্রাহক বৃদ্ধিতে কি উদ্যোগ? এমন সব প্রশ্নের উত্তর দিলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব মো. ফয়জুর রহমান চৌধুরী।

সরকার জনগণের কাছে দায়বদ্ধ, বিটিআরসি নয়

৫ জানুয়ারি গণতন্ত্র হত্যা দিবস পালনের অনুমতি না দেয়া এবং বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে অবরুদ্ধ করে রাখার প্রতিবাদে দেশব্যাপী চলছে টানা অবরোধ ও হরতাল। আর এ কর্মসূচির কারণে স্থবির হয়ে পড়েছে দেশ। এতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতির মুখে পড়েছে দেশের ব্যবসায়ীরা। যার মধ্যে সময় মতো পণ্যের শিপমেন্ট করতে না পারায় আবারো আন্তর্জাতিকভাবে ইমেজ সঙ্কটের পড়েছে দেশের পোশাক শিল্পখাত। বর্তমান অবস্থার কারণে সর্বনিম্ন ১০ থেকে সর্বোচ্চ ৩০ শতাংশ পর্যন্ত ডিসকাউন্ট দাবি করছে বিদেশি ক্রেতারা। সেই সঙ্গে থাকছে অধিক খরচের বিমানযোগে পণ্য পাঠানোর দাবি। এ অবস্থায় ব্যাপক আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়তে হচ্ছে বলে দাবি গার্মেন্টস মালিকদের। দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে বড় ধরণের ভূমিকা রাখা এ খাতটি একের পর এক সঙ্কটের মুখে পড়ছে। ঢাকায় রানা প্লাজা ধসের ঘটনার পর আন্তর্জাতিকভাবে ভয়াবহ ইমেজ সঙ্কটের কবলে পড়েছিল গার্মেন্টস মালিকেরা। সেই সঙ্কট কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই যুক্ত হয়েছে ২০ দলের টানা অবরোধ কর্মসূচি। বিজিএমইএর পক্ষ থেকে জানানো হয়, এবারের হরতাল-অবরোধে তাদের ক্ষতি অনেক বেশি হবে। কারণ বড় দিন শেষ হয়ে বছরের শুরুতে বিদেশ থেকে নতুন নতুন অর্ডার পাওয়া সময় এখন। কিন্তু রাজনৈতিক সমস্যার কারণে ক্রেতারা অর্ডার নেয়ার জন্য আসতে পারছেন না।

রাজনীতির আগুনে ইমেজ সঙ্কটে পোশাক খাত

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) আইনে মোটরসাইকেলে চালকসহ দুই জন আরোহী বহনের অনুমতি থাকলেও সরকার প্রজ্ঞাপন জারি করে অনির্দিষ্টকালের জন্য তা নিষিদ্ধ করেছে। সাম্প্রতিক সময়ে এই দ্বিচক্রযানটি ব্যবহার করে নাশকতামূলক কর্মকাণ্ড ঘটানোর পরিপ্রেক্ষিতে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। যদিও এ পদক্ষেপ কতোটা কার্যকর হবে তা নিয়ে সংশয় রয়েছে। তারচেয়ে বড় কথা হলো- এই নিষেধাজ্ঞার ফলে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের কয়েক হাজার খেটে খাওয়া মানুষের পেটে লাথি মারা হলো! বরিশাল, নেত্রকোনাসহ বেশক’টি জেলায় এখন মোটরসাইকেলে যাত্রী বহন একটি বেশ ভালো পেশা হিসেবে দাঁড়িয়ে গেছে। অসংখ্য বেকারের এতে কর্মসংস্থান হয়েছে। কয়েক হাজার পরিবার তাদের উপার্জনের উপর নির্ভরশীল। এই নিষেধাজ্ঞা যদি টানা এক সপ্তাহ বলবত থাকে তাহলে নিঃসন্দেহে তাদের অভুক্ত থাকতে হবে।

কয়েক হাজার মানুষের পেটে লাথি