রোববার, ২৮ ডিসেম্বর ২০১৪ ।

৩ দিনের রিমান্ডে আলাল

বকশিবাজারের ঘটনায় চকবাজার থানার মামলায় যুবদলের সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলালকে তিন দিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ। এর আগে চকবাজার থানার ওসি (তদন্ত) ইলিয়াস হোসেন রোববার আলালকে আদালতে পাঠিয়ে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। শুনানি শেষে ঢাকার অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আলী মাসুদ সেখের আদালত তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

বিএনপির সব নেতাকে গ্রেপ্তার করা হবে

বিএনপি হরতালের নামে কোনো সন্ত্রাস বা নৈরাজ্য করলে তাদের সব নেতাকে গ্রেপ্তার করা হবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম। রোববার বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের হরতাল ঘোষণার প্রতিবাদে আয়োজিত এক বর্ধিত সভায় তিনি একথা বলেন। কামরুল বলেন, ‘বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় ও যুবদলের সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন আলালকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, আরও দু’একজন গ্রেপ্তার হবে। সোমবার হরতালের নামে কোনো সন্ত্রাস করলে বিএনপির সব নেতাদেরই গয়েশ্বর ও আলালের পরিণতি হবে।’ কামরুল এসময় নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে বলেন, ‘হরতাল দিয়ে তারা (বিএনপি) আবারও নৈরাজ্য করতে চায়। রাজনৈতিক কর্মী হিসেবে আমাদেরও দায়িত্ব জনগণের জান-মালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা। আমরা মাঠে থাকব, আর তারা (বিএনপি) মাঠে নামলে ব্যবস্থা নিতে হবে। কী ব্যবস্থা নিবেন, এটা আপনারা বুঝে নিয়েন। জ্ঞানীদের জন্য ইশারাই যথেষ্ট। বিএনপি নেতারা যে ভাষায় কথা বলবে, সে ভাষাই জবাব দেয়া হবে।’

বিরোধী নেতা-কর্মীদের ধরপাকড় করা হচ্ছে

হরতালকে সামনে রেখে সরকার বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের ধরপাকড় করছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী আহমেদ। সন্ধ্যায় নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে রিজভী এ কথা বলেন। এসময় আগামীকালের হরতালকে সফল করতে সকলের প্রতি আহবান জানান তিনি। সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির কর্মসূচি কাভার না করার আহ্বানের মধ্য দিয়ে খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম বাকশালী বক্তব্য দিয়েছেন বলেও মন্তব্য করেন তিনি। এছাড়া সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়া হত্যাকাণ্ডের ৯ বছর পর হবিগঞ্জ বিএনপি নেতা ও হবিগঞ্জের পৌর মেয়র গোলাম কিবরিয়া গউছকে কারাগারে প্রেরণের ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে অনতিবিলম্বে তার মুক্তি দাবি করেন রিজভী আহমেদ।
নিখোঁজ এয়ার এশিয়ার বিমানটি সাগরে বিধ্বস্ত হয়েছে এবং এর ধ্বংসাবশেষ ইন্দোনেশিয়ার পূর্ব বেলিতাং দ্বীপ সংলগ্ন সমুদ্রে দেখতে পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে ‘বাঙ্কা পোস’ নামে ইন্দোনেশীয় একটি অনলাইন সংবাদমাধ্যম। সংবাদমাধ্যটি জানায়, ওই স্থানে বিমানের ধ্বংসাবশেষ দেখতে পাওয়া গেছে বলে তাদের সূত্র জানিয়েছে। তবে ওই ধ্বংসাবশেষই হারিয়ে যাওয়া কিউজেড ৮৫০১ নম্বর ফ্লাইটের কিনা, সে সম্পর্কে এখনও তারা নিশ্চিত নন। বেলিতাং প্রদেশের এইচএএস হানানজোদ্দিন তানজুংপান্ডান বিমানবন্দরের কর্মকর্তা সুপর্নো জানান, যেখানে ধ্বংসাবশেষ পাওয়া গেছে সে জায়গাটি এখনও সুর্নিদিষ্টভাবে চিহিৃত হয়নি...
শিশু জিহাদ উদ্ধারে সরকারি পেশাদার বাহিনীর ২৩ ঘণ্টার চেষ্টাকে মাত্র ১০-১২ মিনিটে ব্যর্থ প্রমাণ করেছেন ৮ যুবক। অথচ তাদের এই অসামান্য কৃতিত্বকে অস্বীকার করলেন স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। রোববার দুপুরে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি পুরো কৃতিত্বই দিলেন ফায়ার সার্ভিস আর বুয়েটকে। অথচ উদ্ধারকাজ স্থগিত করার কয়েক ঘণ্টা আগে তিনি নিজেই নিশ্চিত করে বলেছিলেন, ওই গর্তে মানুষের কোনো অস্তিত্ব নেই।
নিজে কখনো রাস্তায় বা উন্মুক্ত জায়গায় ময়লা ফেলবো না এবং অন্যকেও না ফেলার জন্যে উৎসাহিত করবো- এই শ্লোগানকে ধারণ করে প্রথমবারের মতো পালিত হবে ‘দেশটাকে পরিষ্কার করি দিবস’। আগামী ৩১ ডিসেম্বর দিবসটি পালনের ঘোষণা দিয়েছে ‘পরিবর্তন চাই’ নামের একটি বেসরকারি সংগঠন। রোববার জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স হলে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে কর্মসূচির বিভিন্ন দিক তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের চেয়ারম্যান ফিদা হক। তিনি জানান, ‘৩১ ডিসেম্বর সকাল ১১টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত আমরা নিজ নিজ বাসা, পাড়া, অফিস, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে বের হয়ে আশপাশের রাস্তা, পার্ক, মাঠ, খাল, নদী বা সাগরের পাড় বা অন্য যেকোনো উন্মুক্ত স্থানের আবর্জনা সংগ্রহ করে নিকটস্থ ডাস্টবিনে ফেলবো।’ ফিদা হক বলেন, ‘ঢাকার নগর ভবন, উত্তর সিটি করপোরেশন কার্যালয়, ধানমণ্ডির রবীন্দ্র সরোবর, মিরপুর ২ নম্বর স্টেডিয়াম, উত্তরা ফ্রেন্ডস ক্লাব, মহাখালীর সাততলা বস্তিসহ ৬টি স্থানকে কেন্দ্র করে পরিচ্ছন্নতা ও সচেতনতা তৈরির অভিযান চলবে।’ ঢাকার এ অভিযানে অন্তত ৫০০০ স্বেচ্ছাসেবক থাকবেন বলেও জানান তিনি। তিনি আরও জানান, ‘ ঢাকার বাইরেও অন্তত ৪০টি জেলায় একাধিক স্থানে ৭০০০ স্বেচ্ছাসেবক একযোগে এ অভিযান পরিচালনা করবে।’ সারা দেশে অভিযানটি এমনভাবে পরিকল্পনা করা হয়েছে যাতে, অভিযানগুলো সিটি কর্পোরেশন বা ওয়ার্ড কমিশনারের কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়।
চলতি বছরের বাকি আর মাত্র তিনটা গোটা দিন। আর তার পরদিনই নতুন বছরের শুরুতেই ঘটা করে বই উৎসব করে দেশের প্রায় সাড়ে ৪ কোটি শিক্ষার্থীর হাতে বিনামূল্যে ৩২ কোটি ৫৮ লাখ ৭৯ হাজার ৬৭৪টি পাঠ্যপুস্তক তুলে দেবে সরকার। গত ৭ বছর ধরে এভাবেই প্রাথমিক, নিম্ন মাধ্যমিক এবং মাধ্যমিকের শিক্ষার্থীদের হাতে বছরের প্রথম দিনেই বই তুলে দিচ্ছে সরকার। এ লক্ষ্যে ইতোমধ্যেই সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করে ফেলেছে শিক্ষামন্ত্রণালয় ও জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি)। এনসিটিবি জানায়, বিগত বছরের মতো এবারও ১ জানুয়ারি সারা দেশে পাঠ্যপুস্তক উৎসব করা হবে। ২০১৫ সালের নতুন শিক্ষাবর্ষে প্রাক-প্রাথমিক, প্রাথমিক, ইবতেদায়ি, দাখিল ও দাখিল ভোকেশনাল, মাধ্যমিক, এসএসসি ভোকেশনালে মোট শিক্ষার্থী সংখ্যা ৪ কোটি ৪৪ লাখ ৫২ হাজার ৩৭৪ জন। ভারতের একটি প্রতিষ্ঠানসহ এবার পাঠ্যবই মুদ্রণের কার্যাদেশ পায় মোট ২৩৮টি প্রতিষ্ঠান। এরমধ্যে উন্মুক্ত দরপত্রে অংশ নিয়ে এবার দেশের তিনটি প্রতিষ্ঠান সবচেয়ে বেশি মোট ১৩ কোটি বই ছাপা, বাঁধাই ও সরবরাহের কার্যাদেশ পায়। প্রতিষ্ঠান তিনটি হলো- সরকার গ্রুপ, প্রমা ও ব্রাইট প্রিন্টিং প্রেস, আনন্দ ও এপ্রেক্স প্রিন্টার্স।
ভাগ্যটা খারাপই বলতে হবে মালয়েশিয়ার। ২০১৪ সালে তাদের তিন তিনটে বিমান খোয়া গেল। সে দেশের সর্বশেষ বিমানটি নিখোঁজ হয়েছে রোববার সকালে। এটি অবশ্য মালয়েশিয়ার কোনো সরকারি সংস্থার বিমান নয়, বিখ্যাত বেসামরিক কোম্পানি এয়ার এশিয়ার বিমান এটি। ২০১৪ সালের আগে একবারও দুর্ঘটনায় পড়েনি এয়ার এশিয়ার কোনো বিমান। যাত্রী সেবা এবং অপেক্ষাকৃত কম খরচের জন্য এই কোম্পানির বেশ সুনামই রয়েছে।
নতুন মিশনে মাঠে নেমেছে ছাত্রলীগ। টেন্ডারবজি, হল দখল, চাঁদাবাজি, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডসহ নানান কাজে জড়িয়ে ইতোমেধ্যে সংগঠনটি বিতর্কে জড়িয়ে পড়েছে। এসব বিতর্কিত কর্মকাণ্ড সংগঠনটির ভাবমূর্তিকে প্রশ্নের মুখে ফেলে। দলের অনেক সিনিয়র নেতাও ছাত্রলীগের ওইসব ব্তির্কিত কর্মকাণ্ডের সমালোচনা করেন। এ অবস্থা থেকে নিজেদের রক্ষা করতে আগামী জানুয়ারিকে সামনে রেখে নতুন রূপে ফিরতে চান সংগঠনটির নেতারা। এতে উৎসাহ যোগাচ্ছেন আওয়ামী লীগের মহানগর ও কেন্দ্রীয় কয়েক নেতা। প্রশ্ন হচ্ছে, ছাত্রলীগের এই নতুন মিশনটা কী? সংগঠনটির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ভবিষ্যতে বিএনপি, তার অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন যাতে আন্দোলন গড়ে তুলতে না পারে সেই বিষয়টি মাথায় রেখে মাঠে থাকবে ছাত্রলীগ। গত ২৪ ডিসেম্বর রাজধানীর বকশিবাজারে বিএনপি ও ছাত্রদল নেতাকর্মীদের মারধর করে ছাত্রলীগ তাদের সেই নতুন মিশনের জানান দিয়েছে। যদিও ওই ঘটনায় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ছাত্রলীগের পক্ষে সাফাই গেয়েছেন। তিনি বলেছেন, ‘ছাত্রলীগ কোথায় হামলা করেছে? তারাই (বিএনপি) তো একটি পরিস্থিতি সৃষ্টি করে এমপিকে হত্যা করতে চেয়েছিল। বিএনপিই অরাজকতা করেছে, আর এর উদ্দেশ্য ছিল সংসদ সদস্য ছবি বিশ্বাসকে হত্যা করা।’ সরকার সমর্থকদের হাতে বাঁশ, লাঠির পাশাপাশি আগ্নেয়াস্ত্র দেখা গেলেও সে বিষয়ে কিছু না বলে আদালতের আশপাশে বিএনপিকর্মীদের জমায়েত নিয়ে প্রশ্ন তোলেন স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী।

শেষ বিকেলে ভারতের সর্বনাশ

ব্রিসবেন ও অ্যাডিলেড ওভালের পর মেলবোর্নেও খাসলত বদলাতে পারেনি ভারতীয় ক্রিকেটাররা। ভালো খেলতে খেলতে হুট করে ছন্দপতন হচ্ছে তাদের, ব্যাটিংয়ের সুরটা কোথায় যেন চড়ে যাচ্ছে? তাই ভারতীয়রা তিন উইকেট হারিয়ে ৪০৯ রান যোগ করার পর ৪৩৪ রানে গিয়ে স্কোরবোর্ডে নেই সাত উইকেট। উপরন্তু শেষ বিকেলে সাজঘরে ফিরেছেন স্বচ্ছন্দ ব্যাটিং করতে থাকা বিরাট কোহলিও (১৬৯)। যা নিঃসন্দেহে ভারতকে পেছনের দরজায় ঠেলে দিয়েছে। কেননা টেস্টের তৃতীয় দিন শেষে দুই উইকেট হাতে রেখে অস্ট্রেলিয়ার থেকে এখনো ৬৮ রানে পিছিয়ে মহেন্দ্র ধোনি বাহিনী।

রোনালদোর পক্ষেই বাজি রেইনার

বায়ার্ন মিউনিখের স্প্যানিশ গোলকিপার পেপে রেইনার বাজি ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর ওপরই। রিয়াল মাদ্রিদের হটসেশন যে টানা দ্বিতীয় বারের মতো বিশ্বসেরার মুকুট পরতে যাচ্ছেন সে বিষয়ে নিঃশংসয় ৩২ বছর বয়সী গ্লাভসম্যান। তবে রেইনা সাথে সাথে এটাও বিশ্বাস করেন যে, এই ট্রফিটি জেতা উচিত ম্যানুয়েল ন্যুয়ারের।

ইতিহাস গড়লেন কোহলি-রাহানে

মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে (এমসিজি) সিরিজের তৃতীয় টেস্টে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ভারতকে কক্ষপথে ফেরাতে নতুন ইতিহাস গড়লেন ভারতের বিরাট কোহলি ও আজিঙ্কা রাহানে জুটি। রোববার সিরিজের তৃতীয় টেস্টের তৃতীয় দিনে নিজেদের প্রথম ইনিংসে চতুর্থ উইকেট জুটিতে ২৬২ রানের রেকর্ড পার্টনারশিপ গড়েন রাহানে ও কোহলি। এশিয়ান বাইরে যেকোনো উইকেট জুটিতে দশ বছরের মধ্যে এটি ভারতের সর্বোচ্চ স্কোর। শুধু কী তাই, মেলবোর্নেও ভারতের হয়ে সর্বোচ্চ রানের জুটি গড়েন ওই জোড়। আর এর মাধ্যমে জুটি প্রথায় চেতন চৌহান ও সুনীল গাভাস্কারের ওপেনিং পার্টনারশিপে ১৬৫ রানের কীর্তিকে ছাপিয়ে যান রাহানে-কোহলি।

মধ্য বয়সেও থাকুন সুস্থ

আমাদের দেশের নারীরা বরাবরই নিজের শরীরের প্রতি উদাসীন। পরিবারের সব কাজ নিজ হাতে সামলানোই তার কাছে কৃতিত্বের। কিন্তু অযত্ন আর অবহেলায় মধ্য বয়সে পা দিতে না দিতেই শরীরে বাসা বাধে নানা রোগ। হতে থাকে হাড়ের ভঙ্গুরতা, ডায়াবেটিস, স্তন ক্যান্সার, উচ্চ রক্তচাপের মতো ইত্যাদি রোগ। তাই জেনে নেয়া যাক, মধ্য বয়সে এসেও এসব রোগ থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায়।
১৯৯৬ সালের ১২ ডিসেম্বর ভারতের হায়দরাবাদ হাউজে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে ৩০ বছর মেয়াদী পানি চুক্তি সই হয়। পরবর্তী বছর ১৯৯৭ সালে ১ জানুয়ারি থেকে দু’দেশের মধ্যে ভারতের অংশে গঙ্গা নদীর পানি ভাগাভাগি চুক্তি কার্যকর শুরু হয়। বাংলাদেশের পক্ষে তৎকালীন ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং ভারতের পক্ষে সে দেশের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী দেবগৌড়ার মধ্যে এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

গঙ্গাচুক্তির ১৮ বছর: পদ্মার বুকে চর

গতবছর ৫ জানুয়ারি নির্বাচনকে ঘিরে যেমন সারাদেশ ছিল উত্তপ্ত, বছর ঘুরতে না ঘুরতেই সেই ৫ জানুয়ারিকে ঘিরে আবারো উত্তপ্ত হচ্ছে রাজনীতির মাঠ। এ দিনটিতে আওয়ামী লীগ সরকারের দ্বিতীয় মেয়াদের ক্ষমতার প্রথম বর্ষপূর্তি। সে জন্য তারা দিনটিকে ‘গণতন্ত্রের বিজয় দিবস’ হিসেবে পালন করার ঘোষণা দিয়েছে। অন্যদিকে রাজপথের বিরোধী শক্তি বিএনপি জোট এ দিনকে ‘গণতন্ত্রের কালো দিবস’ পালন করবে। ইতোমধ্যে এ দিনকে ঘিরে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির নেতারা বিভিন্ন সভা-সমাবেশে বক্তব্য দিয়ে রাজনৈতিক পরিবেশকে উত্তপ্ত করে তুলছেন।

টার্গেট ৫ জানুয়ারি: মাঠে থাকবে কে?

সর্ষের ভেতর ভূত- এই পুরনো আপ্তবাক্যটি যেন বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি বা বিআরটিএ’র সমার্থক। সর্ষের মধ্যে ভেজাল থাকলে ভূত তাড়াতে সেই সর্ষে যেমন কাজ হয় না, ঠিক একই অবস্থা বিআরটিএ’র। এখানে দালাল ছাড়া কোনো কাজ প্রায় অসম্ভব। সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীও স্বীকার করেন তার এই দপ্তরের দুর্নীতির কথা। কেন থামছে না বিআরটিএ’র দুর্নীতি বা দালালদের দৌরাত্ম? বাংলামেইলের পক্ষ থেকে সরেজমিনে এ বিষয়ে চালানো হয় অনুসন্ধান। দেখা যায়, এখানকার কর্মকর্তারাই নিয়োগ দিচ্ছেন দালালদের! যারা তাদের হয়ে ‘কাজ’ করছে মাঠপর্যায়ে।

যেখানে সবাই দালাল!

পাঁচ শতাধিক হকারের দখলে দেশের বৃহত্তম পর্যটন কেন্দ্র কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত। সৈকত এলাকায় হকার প্রবেশ নিষিদ্ধ থাকলেও কোনো কোনো সময় পর্যটকদের চেয়ে হকারদের আনাগোনাই বেশি দেখা যায়। হকারদের কারণে কোনো পর্যটকই সৈকত এলাকায় শান্তিতে ঘুরতে পারছেন না।

হকারের দখলে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত