শুক্রবার, ২৯ মে ২০১৫ ।

কিনারা পাবে কি সাগরভাসা মানুষেরা?

মূলত চলতি মাসের মধ্যভাগে থাইল্যান্ডে গণকবর আবিষ্কারের পরই সমুদ্রপথে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাংলাদেশি ও রোহিঙ্গা অবৈধ অভিবাসনের বিষয়টি সামনে চলে আসে। থাই-মালয়েশীয় সীমান্তে এখনো মিলছে দেহাবশেষ। আর এসব দেহাবশেষ বাংলাদেশি ও মিয়ানমারের রোহিঙ্গাদের বলেই ধারণা করা হচ্ছে। এরই মধ্যে মানবপাচারের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে মালয়েশিয়ার আটক করা হয়েছে ১২ পুলিশ সদস্যকে। এদের মধ্যে দুই জন পাচারে নিজেদের সংশ্লিষ্টতার কথা স্বীকারও করেছে। এদিকে থাইল্যান্ড ও ইন্দোনেশিয়া উপকূলে আশ্রয় শিবিরে রয়েছেন সাগর থেকে উদ্ধার করা সাড়ে তিন হাজারেরও বেশি অভিবাসন প্রত্যাশী। এরা সবাই বাংলাদেশি ও রোহিঙ্গা। গভীর সাগরে আরো সাত হাজার ভাসমান রয়েছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ।

দু'গ্রুপে গোলাগুলিতে ছাত্রলীগকর্মী নিহত

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে জীবন নামে এক ছাত্রলীগ কর্মী মারা গেছে। নগরীর রানীবাজার এলাকায় দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়া ও সংঘর্ষের সময় জীবন গুলিবিদ্ধ হয়। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে রাজশাহী সরকারি সিটি কলেজে এ ঘটনা ঘটে। পরে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসাপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। জীবন শেখ কারিগর পাড়ার হোসেন শেখের ছেলে। স্থানীয়রা জানান, পূর্ব শক্রতার জের ধরে রাজশাহী সিটি কলেজের সভাপতি রবিন গ্রুপের সঙ্গে ছাত্রলীগ নেতা তুহিন গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়া, সংঘর্ষ ও গুলিবিনিময়ের ঘটনা ঘটে। এসময় রবিন গ্রুপের জীবন গুলিবিদ্ধ হয়। স্থানীয় লোকজন আহত জীবনকে উদ্ধার করে রামেক হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক সাইফুল ইসলাম তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

পান্থপথে ফের ধস

রাজধানীর কাওরান বাজারে হোটেল সুন্দরবন ও ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেডের নির্মাণাধীন টুইন টাওয়ারের মাঝের এলাকার একটা অংশ ধসে পড়েছে। বুধবার এই একই এলাকায় ১৫ ফুট প্রশস্ত একটি সড়ক ধসে নির্মাণাধীন ভবনটির পাইলিংয়ের জন্য খোঁড়া গর্তে চলে যায়। এতে মারাত্মক ঝুঁকির মধ্যে পড়ে হোটেল সুন্দরবন। আবারো বিপদ এড়াতে গতকাল ঘটনার পরপরই সেখানে বালু ফেলার কাজ শুরু হয়। তিন দিনে সেখানে ১৫শ ট্রাক বালু ফেলার কথা ছিল। কিন্তু বালু ফেলার কাজ চলার মধ্যেই বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ৮টার দিকে সেখানে আবার কিছুটা অংশ ধসে যায়। তবে এ ঘটনায় কারো আহত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি।
গত ১১ মে শেষে ব্যাংক খাতে সরকারের মোট ঋণ স্থিতি দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ৪ হাজার ৪২ কোটি টাকা, যা ২০১৪ সালের জুনে ছিল ১ লাখ ১৪ হাজার ২৪৩ কোটি টাকা। ফলে জুলাই-জানুয়ারি এ ১০ মাসে সরকারের নিট ঋণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ১০ হাজার ২০১ কোটি ৮৭ লাখ টাকা। যেখানে চলতি অর্থবছরে সরকারের ব্যাংক ঋণের লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে ৩১ হাজার ২২১ কোটি টাকা এবার আগামী বাজেটে ব্যাংকিং খাত থেকে বড় অংকের ঋণ নেয়ার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে সরকার। ২০১৫-১৬ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে এ খাত থেকে ঋণ নেয়া হতে পারে ৩৮ হাজার ৩০০ কোটি টাকা। এই লক্ষ্যমাত্রা চলতি বাজেটের তুলনায় ১৮ শতাংশ বেশি। অর্থনীতিবিদরা মনে করেন, অভ্যন্তরীণ সম্পদ আহরণে দুর্বলতার কারণেই বাজেট ঘাটতি পূরণে সরকারকে ঋণ নিতে হচ্ছে। তাই ঋণ নির্ভরশীলতা কমাতে হলে রাজস্ব আদায় বাড়াতে হবে। চলতি অর্থবছরে ব্যাংকিং খাত থেকে ঋণ নেয়ার লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয় ৩১ হাজার কোটি টাকা।
আন্তর্জাতিক মানবপাচারকারী চক্রের প্রধান টার্গেট এখন দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার বাংলাদেশ ও মিয়ানমার। এর মধ্যে মিয়ানমারের আরাকান রাজ্যের নির্যাতিত রোহিঙ্গা মোসলমানরা একটা নিরাপদ আশ্রয়ের আশায় সহজেই ধরা দিচ্ছে দালালদের হাতে। অপরদিকে ইন্দোনেশিয়াকে কাছাকাছি ও লোভনীয় কর্মসংস্থানের দেশ হিসেবে মনে করছে বাংলাদেশিরা।দীর্ঘ দিন থেকে বৈধ অভিবাসন প্রক্রিয়া বন্ধ থাকায় দালালদের মাধ্যমে সাগরপথে মালয়েশিয়া পাড়ি দিচ্ছে তারা। কিন্তু সাগরপথের ভয়াবহতা সম্পর্কে কোনো ধারণা না থাকায় সহজেই তারা প্রতারিত হচ্ছে।
খুবই অগোছালো অবস্থা বিএনপির। দলটি স্বাভাবিক কর্মসূচি পালন করতেও হিমশিম খাচ্ছে। অধিকাংশ নেতাকর্মী কারাগার অথবা আত্মগোপনে। এ অবস্থায় বৃহস্পতিবার বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৪তম শাহাদাত বার্ষিকীর আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি করা হলো বিকল্প ধারার সভাপতি অধ্যাপক ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরীকে। তিনি বিএনপির প্রতিষ্ঠা মহাসচিব। বিএনপি সরকার গঠন করলে কিছুদিন রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নেয়ার পর তিনি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া এবং তার বড় ছেলে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব তারেক রহমানের বিরুদ্ধে নানা বক্তব্য দিয়েছেন, তা গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। বিকল্পধারা নামে একটি নতুন দলও করেছেন তিনি। আর সেই থেকে বি চৌধুরীর প্রতি বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে যে ক্ষোভ তৈরি হয়েছিল তা এখনো সতেজ আছে তা বুঝা গেল ওই আলোচনায় সভার আয়োজনে।
স্বল্প ও মধ্যম আয়ের জনগোষ্ঠীর আবাসন সমস্যার সমাধানের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এজন্য রাজধানীর উত্তরায় ৬৭২টি ফ্ল্যাট তৈরি করা হবে। এতে ব্যয় হবে ৩২৯ কোটি টাকা। বুধবার সচিবালয়ে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি এ প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে। এছাড়া মন্ত্রিসভা কমিটি বাস্তবায়নাধীন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক চার লেনে উন্নীতকরণ প্রকল্পের ব্যয় সংশোধনের ছয়টি প্রস্তাবও অনুমোদন করেছে । এতে চারটি প্রকল্পের ব্যয় বৃদ্ধি পেয়েছে ও দুটি প্রকল্পের ব্যয় কমেছে। সব মিলিয়ে আজকের বৈঠকে মোট ১২টি প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয়েছে। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সভাপতিত্বে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, বৈদেশিক কর্মসংস্থান ও প্রবাসীকল্যাণমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন, গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী মোশাররফ হোসেন, তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জোনায়েদ আহমেদ পলক প্রমুখ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোস্তাফিজুর রহমান সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান।
মুখের শান্ত সৌম্য ভাব বজায় রাখতে হবে বাছা। লুঙির কাছা গুটিয়ে চাঁছাছোলা লাফ দিতে হবে জলে। যদি বাঁচাতে চাও প্রেমসঙ্গীকে, সঙ্গে ভরতে চাও থলে। বেকারের চোখে জল ভয়ানক ফল আনবে সাকারদের ভাগ্যে। পারিবারিক মুরুব্বি জন যদি কন ‘যাগগে’, তো বলতে হবে ‘জ্বি হুজুর, আজ্ঞে।’
মুস্তফা কামাল বলেন, ‘ভারতের টেলিগ্রাফ পত্রিকা আমাকে প্রশ্ন করেছিলো শ্রীনির উপরে আমি কতোটা ক্ষীপ্ত, আমি শ্রীনিকে ফোন করেছি কিনা জানতে চেয়েছে।’ জবাবে বলেছি, ‘আমার তরফ থেকে ফোন করার তো কোনো প্রশ্নই আসে না।’ এদিকে শ্রীনি ফোন করলে মুস্তফা কামাল তাকে ক্ষমা করবেন কী-না? টেলিগ্রাফের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘নিশ্চয়।সে ফোন করলে আমি ক্ষমা কেন করবো না? অবশ্যই ক্ষমা করবো।সে ‘সরি’ বললেই হবে।’

ক্রিকেটের সঙ্গে থাকতে চান মুস্তফা কামাল

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতির চেয়ারে বসার আগে আ হ ম মুস্তফা কামালের সঙ্গে ক্রিকেটের সম্পর্কটা ছিল দীর্ঘদিনের। পরে আইসিসি সভাপতির পদে বসার আগে সরে দাঁড়িয়েছিলেন বিসিবি সভাপতির আসন থেকে। তবে ক্রিকেট অন্তঃপ্রাণ এ মানুষটি কিন্ত সরে দাঁড়াননি ক্রিকেট থেকে। বর্তমান সরকারের পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের ভীষণ ব্যস্ততার মাঝেও ছুটে আসেন মাঠে। ক্রিকেট নিয়ে তার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা জানতে চাইলে তিনি জানান, ইতোমধ্যে নিজ গ্রামে ইউনিয়ন পর্যায় থেকে ক্রিকেট শুরু করার চিন্তা শুরু করেছেন। প্রাথমিকভাবে নিজ গ্রামে হলেও একটা পর্যায়ে সারা দেশেই একটি টুর্নামেন্ট ছড়িয়ে দেয়ার পরিকল্পনা রয়েছে তার।

সিদ্দিককে ছাপিয়ে দুলাল হোসেন

দেশসেরা গলফার সিদ্দিকুর রহমান। এটা সবাইকে মানতেই হবে। তবে চলমান বসুন্ধরা বাংলাদেশ ওপেনে সিদ্দিককে ছাপিয়ে নতুন আলোয় উদ্ভাসিত বাংলাদেশের আরেক গলফার দুলাল হোসেন। বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় রাউন্ডের খেলা শেষে তালিকায় পঞ্চম স্থানে জায়গা করে নিয়ে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন দুলাল। দুই রাউন্ড শেষ করেছেন তিনি পারের চেয়ে ৬ শট কম খেলে। প্রথম দিনে দুলালের অবস্থান ছিল ৫০। তবে দ্বিতীয় দিনেই বিস্ময়কর পারফরমেন্সে এক লাফে উঠে এসেছে পাঁচে। সেই তুলনায় সিদ্দিকুরের অবনমন সবাইকে হতাশ করেছে। প্রথম দিনে সিদ্দিকুর ছিলেন ৩৩তম। তবে দ্বিতীয় দিন শেষে তার অবস্থান গিয়ে দাঁড়িয়েছে ৪২ এ।

মুস্তফা কামালকে সাহসী বললেন ডালমিয়া

বিশ্বকাপ ক্রিকেটের পর থেকেই বাংলাদেশ-ভারত ক্রিকেটীয় সম্পর্ক টানাপোড়েন সৃষ্টি হয়েছে- দূর থেকে এমনটাই ভাবতে পারেন অনেকে। তবে বাস্তবতা বলছে ভিন্ন কথা। গত রোববার ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) আমন্ত্রণে স-পরিবারে কলকাতায় আইপিএলের ফাইনাল ম্যাচ দেখতে যান বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) ও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) সাবেক সভাপতি আহম মুস্তফা কামাল।

আমি লুকিয়ে কেঁদেছি: প্রসূন আজাদ

ময়মনসিংহের মেয়ে প্রসূন আজাদ। এই লাক্স কন্যা এরই মধ্যে নিজের মেধা আর শ্রম দিয়ে জায়গা করে নিয়েছেন দর্শক মনে। তবে তিনি শৈশব থেকেই দর্শক আর শ্রোতাদের মনে আছেন। মেয়েটি যেমন অভিনয় জানেন তেমনি গানও জানেন। নজরুল সংগীত বিভাগে নতুন কুঁড়ির ঢাকা বিভাগের সেরা শিল্পী হয়েছিলেন তিনি। অনিমেষ আইচের পরিচালনায় 'একটি মৃত্যুর স্বপ্ন' ছিল তার অভিনীত প্রথম নাটক। ২২ মে মুক্তি পেয়েছিল প্রসূন আজাদ অভিনীত দ্বিতীয় ছবি 'অচেনা হৃদয়', ২৯ মে মুক্তি পাচ্ছে তার অভিনীত 'ইউটার্ন' ছবিটি। এ ছবিতে প্রসূন আইটেম গার্ল হিসেবে একটি গানের সঙ্গে নেচেছেন। অভিনয়, ক্যারিয়ার আর ব্যক্তিজীবনের নানান প্রসঙ্গে বাংলামেইলের ফেস টু ফেস বিভাগে কথা বলেছেন তিনি...

শিশুর সুস্থতায় দেশীয় ফল

গরমের দিনে নিয়মিত ক্লাস আর কোচিং নিয়ে ব্যস্ত থাকা বাড়ির সবচেয়ে ছোট সদস্যটি হয়ে পড়ে খুবই ক্লান্ত। শরীর থেকে ঘামের সঙ্গে বের হয়ে যায় প্রয়োজনীয় লবণ। সঠিক যত্নের অভাবে বাচ্চাটি দূর্বল হয়ে পড়ে। নানা ধরনের অসুখেও খুব সহজে পেয়ে বসে। তাছাড়া দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা সক্রিয় রাখতে দরকার প্রয়োজনীয় পুষ্টির যোগান। আর তাই এই গরমে বাচ্চাকে সুস্থ রাখতে বেশি করে মৌসুমি ফল খাওয়ানো যেতে পারে। এসময় আমাদের দেশে পুষ্টিগুণে ভরা নানা ধরনের ফল পাওয়া যায়। বাচ্চার খাদ্য তালিকায় কেমিকেল মুক্ত, সহজলভ্য, দেশিয় এসব ফল রাখা উচিৎ। কারণ-
বারবার প্রতিশ্রুতি সত্ত্বেও বহুল প্রতীক্ষিত ইলেক্ট্রনিক জাতীয় পরিচয়পত্র বা স্মার্টকার্ড এখনও নাগরিকের হাতে তুলে দিতে পারেনি নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ঘোষণা দিয়েও বারবার পিছিয়ে দেয়া হচ্ছে। ফলে এ প্রকল্প নিয়ে নাগরিকদের মনেও হতাশা জাগছে। গত ২৩ মে সোমবার জাতীয় পরিচয়পত্র অনুবিভাগের (এনআইডি) স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠকে স্মার্টকার্ড প্রকল্প নিয়ে আলোচনা হয়। স্মার্টকার্ড এখনো ভোটার হওয়া নাগরিকেকদের হাতে পৌঁছে দিতে না পারা ও প্রকল্পের অগ্রগতি দেখে জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন কর্তৃপক্ষের ওপর হতাশা প্রকাশ করেছে নির্বাচন কমিশন। প্রতিশ্রুতি দিয়ে সময় মতো কাজ করতে না পারায় প্রকল্প সংশ্লিষ্টদের ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করেন ইসি কর্মকর্তারা।

স্মার্টকার্ডে আনস্মার্ট ইসি, বিরক্ত কর্মকর্তারা

ঠেলাঠেলিতে ছোট্ট চটিটা খুলে গেল। আর সেটা চোখে পড়তেই রাজকুমার নিষ্ঠা ও বিনয়ের সাথে অবনত হয়ে সেই জুতা কুড়িয়ে সযত্নে পরিয়ে দিয়ে তার দিকে তাকিয়ে মুচকি হাসলেন। এই প্রথম রাজকুমারের সাথে তার দৃষ্টি বিনিময়। দৃশ্যটা ‍হুবহু রূপকথার সিনডারেলার মতো। কিন্তু বাস্তবে ঘটে গেল কয়েকশ মানুষের সামনে। অবশ্য এখানে একটু পার্থক্য ছিল: ওই চটি জুতাটা কাচের না হয়ে ছিল লাল রেশমের আর এই সিডারেলার বয়স মাত্র চার বছর। কিন্তু রাজকুমারটা ছিল সত্যিকার। তবে কোঁকড়ানো চুলটা রূপকথার নায়কের সাথে বৈপরিত্য তৈরি করে দিচ্ছিল। তা বাদে এই রাজকুমার কোনো অংশে কম নয়, কারণ সে ব্রিটিশ রাজকুমার প্রিন্স হ্যারি!

সত্যিকারের সিনডারেলা

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সম্মেলন আগামী ২৫-২৬ জুলাই। তার আগে চলছে মহানগর ও জেলা পর্যায়ের কমিটিগুলোর সম্মেলন। এ মাসেই অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ছাত্রলীগের দুটি গুরুত্বপূর্ণ শাখা- ঢাকা মহানগর উত্তর ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সম্মেলন। ছাত্রলীগের ‘সুপার ইউনিট’ হিসেবে পরিচিত এ দুটি শাখার সম্মেলন হবে আগামী ২৮ ও ৩০ মে। ২৮ মে মহানগর উত্তরের এবং ৩০ মে মহানগর দক্ষিণের নেতা নির্বাচন করা হবে।

ছাত্রলীগের দুই সুপার ইউনিটে আসছেন কারা

সম্প্রতি বেশ কয়েক জন ‘নাস্তিক’ ব্লগারকে হত্যার দায় স্বীকারকারী ইসলামি জঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিমকে নিষিদ্ধ করেছে সরকার। যদিও এইসব হত্যা তদন্তে তেমন কোনো অগ্রগতি দেখাতে পারেনি আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। তাই তাদের সুনির্দিষ্টভাবে চিহ্নিত করার আগেই নিষিদ্ধ করাটা কতোটা যৌক্তিক বা এ ধরনের জঙ্গি সংগঠন নির্মূলে কতোটা কার্যকর তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করছেন নিরাপত্তা বিশ্লেষকেরা। কারণ এই জঙ্গি সংগঠনের ব্যাপারে গোয়েন্দা সংস্থাগুলো আগে থেকে কিছুই জানতো না। একটা হত্যাকাণ্ড সংগঠনের পর যখন এরা দায় স্বীকার করে ওয়েবসাইটে বিবৃতি দিচ্ছে তখনই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে এদেরকেই হত্যাকারী বলে প্রচার করা হচ্ছে। কিন্তু সুনির্দিষ্টভাবে কাউকে চিহ্নিত করতে পারছে না। বা চিহ্নিত করার দাবি করা হলেও তার অগ্রগতি দৃষ্টিগ্রাহ্য হচ্ছে না।

জঙ্গি সংগঠনকে নিষিদ্ধ করাই যথেষ্ট?